বন্যা মোকাবেলায় সবাইকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

0
20

খবর৭১ঃ দেশের নদ-নদীতে অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে বন্যার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকলকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এই নির্দেশনা দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে এবং মন্ত্রিপরিষদ সদস্যবৃন্দ সচিবালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভার্চুয়ালি বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। পরে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বৈঠকের বিষয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আজকের বৈঠকে অনির্ধারিত আলোচনায় বন্যা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বন্যায় পানির উচ্চতা বিশেষ করে যমুনা ও পদ্মা অববাহিকায় বেড়ে যাচ্ছে। সেজন্য প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী এ ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলায় তাদের বিভিন্ন কর্মসূচি সম্পর্কে অবহিত করেন।

মন্ত্রিপরিষদ বৈঠক শেষে খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, প্রধানমন্ত্রী কৃষিমন্ত্রীকে আমন চাষে কোনো অসুবিধা হলে ট্রান্সপ্লান্ট আমনের (টি-আমন) জালা প্রস্তুত রাখতে বলেছেন। কৃষিমন্ত্রী জানিয়েছেন, আমাদের প্রস্তুতি আছে। আশা করছি, বন্যার কারণে এ ক্ষেত্রে কোনো অসুবিধা হবে না।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, কৃষিমন্ত্রী জানিয়েছেন যে, প্রধানমন্ত্রী তাকে নির্দেশনা দিয়েছেন যেসব এলাকায় পানি বেড়ে যায়, বিশেষ করে গোয়ালন্দের পরে যমুনা ও পদ্মা যেখানে একসঙ্গে হয়েছে, এসব এলাকার জন্য প্রস্তুত থাকতে। কোনো এলাকায় যদি ভাদ্র মাসে পানি আসে আর বঙ্গোপসাগরে যদি জোয়ার থাকে তাহলে পানি নামতে দেরি হয়। সেক্ষেত্রে আমন চাষে কোনো অসুবিধা হলে, টি-আমন জালা প্রস্তুত রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রী পরামর্শ দিয়েছেন।

আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘অনেকগুলো দেশ বিমান উড্ডয়নের চার, ছয় অথবা আট ঘণ্টার মধ্যে যাত্রীদের পিসিআর পরীক্ষার দাবি জানিয়ে আসছে। বিষয়টি নিয়ে গত কয়েক দিন থেকে আলোচনা চলছিল। আজকে এ ব্যাপারে সুস্পষ্ট নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। খুব দ্রুত দুই বা তিন দিনের মধ্যে বিমানবন্দরেই একটা টেস্টিং ফ্যাসিলিটিজের ব্যবস্থা করতে হবে। অন্যান্য দেশে যে রকম আছে ঠিক সে রকম। যাতে বিমান উড্ডয়নের চার ঘণ্টার মধ্যে যাত্রীরা পরীক্ষা করতে পারেন।’

সচিব বলেন, বিশ্বের বড় বড় এয়ারপোর্টে এখন তাৎক্ষণিক করোনা পরীক্ষা করার ব্যবস্থা আছে। বিশ্বের অনেক দেশ যদিও দাবি করছে- চার, ছয়, অথবা আট ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর পরীক্ষা করতে। কিন্তু আমরা বলেছি ৪৮ ঘণ্টা আগে পিসিআর পরীক্ষা করলে চলবে। আমাদের লোকরা যে দেশে আছে, তারা সেখান থেকে পরীক্ষা করে আসবে। অনেক দেশ আছে ৪ থেকে ৮ ঘণ্টা সময় দেয়।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, যে যে দেশে যাবে তার যে রকম প্রয়োজন হবে সে অনুযায়ী যাতে এয়ারপোর্ট থেকেই সে পরীক্ষা করে নিতে পারে।

বিমানবন্দরে কবে নাগাদ পিসিআর টেস্ট চালু হচ্ছে জানতে চাইলে খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘আজকেই নির্দেশনা দিয়ে দেয়া হয়েছে। যত তাড়াতাড়ি পারা যায় দুই-তিন দিন অথবা সাত দিন। না হলে আপনিতো ওই দেশে যেতে পারছেন না।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here