অবাধ বাণিজ্য চুক্তির নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী: বাণিজ্যমন্ত্রী

0
41

খবর৭১ঃ স্বল্পোন্নত দেশ তথা এলডিসি থেকে উত্তরণের পর কয়েকটি চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে পারে বাংলাদেশ। আর এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বিভিন্ন দেশের সঙ্গে অবাধ বাণিজ্য চুক্তি—এফটিএ এবং অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য চুক্তি—পিটিএ করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ঢাকার শেরে বাংলা নগরে পর্যটন ভবনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের দিনব্যাপী এক কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে সরকারপ্রধানের এ নির্দেশনার কথা জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

এলডিসি থেকে উত্তরণের পর চ্যালেঞ্জের বিষয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘স্বল্পোন্নত দেশের কাতার থেকে উত্তরণের পর পণ্য রপ্তানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধা থাকবে না। এতে রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। রপ্তানি বাড়াতে কৃষিপণ্যসহ বিভিন্ন খাতে ভর্তুকিও কমাতে হবে। এরকম আরও কিছু চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে।’

বাণিজ্যমন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী তাকে ডেকে নিয়ে পিটিএ ও এফটিএ না হলে বিপদে পড়তে হবে বলে সতর্ক করেছেন। আর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয় কি করছে তা জানতে চেয়েছেন সরকারপ্রধান।

এলডিসি থেকে উত্তরণ নিয়ে সরকার একদিকে আনন্দিত আবার একইসঙ্গে চিন্তিত মন্তব্য করে টিপু মুনশি বলেন, ‘কিন্তু এর জন্য কি প্রস্তুতি নেওয়া যায় সে বিষয়ে সরকার সিরিয়াস। সিরিয়াসলি নেমে যেতে হবে এখনই। না হলে ২০২৬ সালের পর কি হবে বলা যায় না। হঠাৎ আসা চাপ সইতে পারবো না।’

‘এলডিসি গ্রাজুয়েশনের পর আমাদের অনেক বাণিজ্য সুবিধা থাকবে না, উন্নত বিশ্বের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে এগিয়ে যেতে হবে। ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন আমাদের জিএসপি প্লাস বাণিজ্য সুবিধা দিলেও অনেক শর্ত পূরণ করতে হবে। বাণিজ্য সুবিধা আদায় করতে পিটিএ বা এফটিএর মতো বাণিজ্য চুক্তি করতে হবে। এজন্য সাময়িকভাবে আমরা কিছু শুল্ক হারালেও দীর্ঘ মেয়াদে লাভবান হবো’—যোগ করে বাণিজ্যমন্ত্রী।

উন্নতবিশ্বের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে যোগ্য ও দক্ষ মানুষ গড়ে তোলার বিকল্প নেই মন্তব্য করে টিপু মুনশি বলেন, ‘বিদেশি দক্ষ জনশক্তির ওপর নির্ভর করলে চলবে না। আমাদের কাজ আমাদেরই দক্ষতার সঙ্গে করতে হবে। যোগ্য ও দক্ষ মানুষগুলোকে কাজে লাগিয়ে দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে হবে।’

‘ন্যাশনাল ওয়ার্কশপ অন দ্যা প্রপোজড টাইম বাউন্ড অ্যাকশন প্ল্যান অফ দ্যা টু এলডিসি গ্রাজুয়েশন রিলেটেড সাব-কমিটি: প্রিফারেনসিয়াল মার্কেট একসেজ অ্যান্ড ট্রেড এগিমেন্ট অ্যান্ড ডব্লিউটিও ইস্যুজ’ শীর্ষক কর্মশালাটির আয়োজন করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। বিভিন্ন অংশীজনের মতামত জানতে এই কর্মশালায় সরকারের বিভিন্ন বিভাগ ও বেসরকারি খাতের প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here