ভারী বর্ষণে পাহাড় ধসের শঙ্কা

0
56

খবর৭১ঃ মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে পার্বত্য অঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় মাঝারী থেকে ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টির এই ধারা আরও দুই দিন অব্যাহত থাকতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এছাড়া, ভারী বর্ষণে চট্টগ্রাম অঞ্চলে পাহাড় ধসের আশঙ্কার কথাও জানানো হয়ে পূর্বাভাসে।

শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের সর্বশেষ পূর্বাভাসে এই আশঙ্কার কথা জানানো হয়।

পূর্বাভাসে বলা হয়, মৌসুমী বায়ু অক্ষের বর্ধিতাংশ পূর্ব-উত্তর প্রদেশ, বিহার, লঘুচাপের কেন্দ্রস্থল ও মধ্যাঞ্চল হয়ে উত্তর-পূর্ব দিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। সেই সঙ্গে বাংলাদেশের ওপর সক্রিয় ও উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি থেকে প্রবল অবস্থায় আছে। ফলে দেশের বিভিন্ন এলাকায় ভারী বৃষ্টিপাত এবং পাহাড় ধসের আশঙ্কা রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ ড. আবুল কালাম মল্লিক বলেন, মৌসুমী বায়ুর সক্রিয় থাকায় বাতাসের গতিবেগ ৪৫ থেকে ৫০ কিলোমিটারের মধ্যে ওঠানামা করতে পারে। অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে ভারী বর্ষণের সংকেত রয়েছে আমাদের কাছে। ফলে চট্টগ্রাম পাহাড়ি এলাকায় পাহার ধসের শঙ্কা রয়েছে।

আবুল কালাম মল্লিক আরও বলেন, সারাদেশে যে বৃষ্টিপাত হচ্ছে তা আগামীকালও অব্যাহত থাকবে। তারপর ২১/২২ তারিখের দিকে কমে যাবে। বর্ষাকাল হওয়ায় পরবর্তীতে আবারও বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বর্ষাজুড়ে এমন আবহাওয়া থাকবে।

এদিকে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে খুলনা, বরিশাল, রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর, সিলেট ও ময়মনসিংহ বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

রাজশাহী, বগুড়া, পাবনা, টাঙ্গাইল, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চাঁদপুর, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, ময়মনসিংহ ও সিলেট অঞ্চলগুলোর ওপর দিয়ে দক্ষিণ দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে ঢাকা, খুলনা, চট্টগ্রাম ও বরিশাল বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হতে পারে।

নদী বন্দরগুলোরগুলোকে দেয়া সতর্কবার্তায় উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here