শাস্তি হিসেবে চোরকে খেয়ে ফেলে পাপুয়া নিউগিনির এই আদিবাসীরা

0
143

খবর ৭১ ডেস্ক: চুরি করলে শাস্তি হিসেবে চোরকে খেয়ে ফেলে কোরোবাই নামে পাপুয়া নিউগিনির এক আদিবাসী গোষ্ঠী। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি স্টার।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি মার্কিন অভিযাত্রী ও ব্লগার ড্রিউ বিনস্কি পাপুয়া নিউগিনির নরখাদক কোরোবাই আদিবাসীদের খোঁজে পৃথিবীর সবচেয়ে বিচ্ছিন্ন জঙ্গল হিসেবে পরিচিত একটি এলাকায় যান।

নির্জন জঙ্গলে কোরোবাই উপজাতির মানুষেরা প্রস্তর যুগের মানুষদের মতো জীবনযাপন করেন।কেউ কেউ পোশাক পরেন না। আবার কেউ কেউ স্বল্পবসন ধারণ করেন। তারা ধনুক এবং তীর ব্যবহার করে শিকার করেন। ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত নৃতাত্ত্বিকরা ইন্দোনেশিয়ার দক্ষিণ পাপুয়া ও হাইল্যান্ড পাপুয়া প্রদেশে যাওয়ার আগে কোরোবাইরা জানতোই না, তারা ছাড়া পৃথিবীতে অন্য কোনো মানুষ আছে।

ড্রিউ বিনস্কি এর আগে, কোরোবাইদের নিকটতম প্রতিবেশী মমুনা উপজাতির সঙ্গেও কিছুদিন ছিলেন। তাদের কাছ থেকেই হিংস্র কোরোবাই মানুষদের সম্পর্কে জানতে পারেন।

তিনি জানতে পারেন, “কোরোবাইরা ক্ষুধার জন্য বা পুষ্টির জন্য মানুষকে ভক্ষণ করে না। মূলত কাউকে শাস্তি দিতে তারা এটা করে।”

কোরোবাইদের মতে, মানুষ ভক্ষণের বিষয়টি উপভোগ বা পুষ্টির জন্য নয়। এটি শাস্তির জন্য করা হয়।

বিনস্কি বলেন, “আপনি যদি কোনো কিছু চুরি করেন, তাহলে তারা আপনাকে আগুনে ছুড়ে মারবে ও খেয়ে ফেলবে।”কোরোবাইদের ধারণা, খাকুয়া নামে একটি দুষ্ট রাক্ষস মানুষের ভেতরে ঢুকে সেই মানুষটিকে ভেতর থেকে খেতে শুরু করে। একসময় ওই মানুষটি ডাইনি বা খারাপ মানুষে পরিণত হয়। আর এই খারাপ মানুষ আরও কারো ওপর ভর করতে পারে। এমনকি তারা বন্ধু বা পরিবারের সদস্যের মতো ছদ্মবেশ ধারণ করতে পারে।

ফলে কেউ চুরি করলে তার ওপর খাকুয়া ভর করেছে বলে বিশ্বাস করে কোরোবাইরা। এজন্য এমন কাউকে পেলে নিজেদের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষায় অনুষ্ঠান করে ওই অপরাধীকে খেয়ে ফেলে তারা।

কোরোবাইদের ভাষ্য, “মানুষের মাংসের স্বাদ অনেকটা বুনো শূকরের মতো। এই উপজাতিরা মানুষের চুল, নখ ও যৌনাঙ্গ ছাড়া শরীরের প্রতিটি অংশ খায়।”

“তবে ১৩ বছরের কম বয়সীরা এই মাংস খেতে পারে না। কারণ কোরোবাইদের ধারণা, খাকুয়া খেলে শিশুদের শরীরে এটি ভর করতে পারে।”

এর আগে, বিচ্ছিন্ন ওই জঙ্গলে কর্নেলিয়াস নামে এক গাইড কোরোবাইদের কাছাকাছি গিয়েছিলেন বলে জানা যায়। তিনি তখন জানান, এক রাতে কোরোবাইরা মানুষের এক টুকরো মাংস তাকে দিয়ে জানায় এই মাংস খেলেই তিনি সেখানে থাকতে পারবেন। নাহয় তাকে ওই এলাকা ছাড়তে হবে।

কর্নেলিয়াস সেই মাংস খেয়েছিলেন। তিনি বলেন, “আমি মানুষের ওই মাংসের টুকরাটি খেয়েছিলাম। তারপর থেকে তাদের খুব ঘনিষ্ঠ হয়ে গেছি।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here