ঝিনাইদহে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ১০

0
30

খবর৭১ঃ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে যাত্রীবাহী বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষে ১০ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন।

বুধবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে যশোর-ঝিনাইদহ সড়কের বারোবাজারের পিরোজপুর নামক স্থানে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থলেই নয়জন এবং হাসপাতালে নেয়ার পথে একজন মারা যায়। এর মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে। আহতদের মধ্যে সাতজনের অবস্থা আশংকাজনক। প্রাথমিকভাবে নিহতদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে এর মধ্যে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মোস্তাফিজুর রহমান নামের একজন সিপাহি রয়েছেন বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মাগুরাগামী জেকে পরিবহনের একটি বাস (ঢাকা মেট্রো-ব-১১-০২১৪) যাত্রী নিয়ে যশোর থেকে মাগুরার দিকে যাচ্ছিল। বাসটি বারোবাজার পার হয়ে পিরোজপুর আমজাদ আলী ফিলিং স্টেশনের সামনে পৌঁছালে বিপরীত থেকে আসা একটি ট্রাকের সংঘর্ষ হয়। এতে যাত্রীবাহী বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার উপর আড়াআড়ি হয়ে উল্টে পড়ে। এতে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনার পর সড়কটিতে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলের উভয় পাশে শত শত বাস-ট্রাক আটকে পড়ে। খবর পেয়ে স্থানীয় জনতার সঙ্গে কালীগঞ্জ ফায়ার স্টেশনের সদস্যরা আহত ও নিহতদের উদ্ধার করেন।

কালীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার শেখ মামুনুর রশিদ বলেন, আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে নয়জনের মরদেহ উদ্ধার করি এবং উদ্ধারকৃত রোগীদের মধ্যে একজন যশোর নেয়ার পথে মারা গেছেন। সব মিলিয়ে ১০ জন মারা গেছেন। পুলিশ ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় উল্টে যাওয়া বাস থেকে হতাহতদের উদ্ধার করি। আহতদের ঝিনাইদহ, কালীগঞ্জ ও যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মাহফুজুর রহমান জানান, আহতদের উদ্ধার করে ঝিনাইদহ, যশোর ও কালীগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতদের পরিচয় এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

দুর্ঘটনার পর ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার, ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ, কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুবর্ণা রানী সাহা, ঝিনাইদহ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বদরুদ্দোজাসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ বলেন, দুর্ঘটনায় আহতদের চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন ও নিহতদের পরিবারের আর্থিক সহযোগিতা করা হবে বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here