বিএনপি ফের নৈরাজ্য করলে ডাবল শিক্ষা পেয়ে যাবে: ওবায়দুল কাদের

0
11

 

নৈরাজ্য করে বিএনপি নেতারা ‘একটা শিক্ষা’ পেয়েছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আবার নৈরাজ্য, সন্ত্রাস ও অরাজকতা করলে এবার ডাবল শিক্ষা পাবে। আমরা বসে নেই, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা সর্বশক্তি দিয়ে লড়বো।

শুক্রবার (১০ মে) বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যৌথসভায় এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

সম্প্রতি বিএনপি নেতারা জামিনে মুক্তি হওয়ায় আবার নৈরাজ্য সৃষ্টি হলে আওয়ামী লীগ কী করবে, এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি নেতারা ছাড়া পাচ্ছেন। দেশের আদালত, বিচার বিভাগ স্বাধীন বলে সেটা সম্ভব হচ্ছে।

নিজেদের শক্তিতে টিকে আছি, ভারতের নয়
ভারত আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখতে পারবে না বলে বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের ভারতকে খুশি করার দরকার নেই। আমরা নিজেদের শক্তিতে টিকে আছি, ভারতের দয়ায় নয়। ভারত আমাদের বন্ধু, পরীক্ষিত বন্ধু। নির্বাচনের সময় যুক্তরাষ্ট্র যে ভূমিকা নিয়েছিল, তখন ভারত একটা কথাও বলেনি, কোনও ভূমিকা রাখেনি। নিজের দেশকে এভাবে ছোট করা গয়েশ্বরদেরই মানায়।

ইসরায়েল নিয়ে বিএনপি চুপ
ফিলিস্তিনে ইসরায়েলের আগ্রাসনের ব্যাপারে সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, মধ্যপ্রাচ্যে যে যুদ্ধ চলছে। আমরা কয়েকবার বলেছি, দুষ্ট ছেলে ইসরায়েল এখন যুক্তরাষ্ট্রকেও মানে না। হিটলারের হলোকাস্টের মতো আজ নেতানিয়াহু গাজায় গণহত্যা চালাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র অস্ত্র না দিলেও তারা একা যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এটি সারা বিশ্বের জন্য আতঙ্কের বিষয়। সারা বিশ্ব এ নিয়ে সোচ্চার। যুক্তরাষ্ট্র-ইউরোপে গাজার প্রতি সহমর্মিতা জানিয়ে কর্মসূচি করছে মানুষ। বিএনপি এ ব্যাপারে কোনও কথা বলছে না। ছাত্রলীগ বড় সমাবেশ করায় তাদের ধন্যবাদ জানাই।

কাদের বলেন, ভুল আর ব্যর্থতার চোরাবালিতে আটকে বিএনপি কিছুই আদায় করতে পারবে না। তারা মুখে বড় কথা বললেও নেতাদের ভেতরে হতাশা ভর করেছে। যত দিন ফিরে না আসবে, আরও জনবিচ্ছিন্ন হবে।

কৃতিত্ব আমাদের দিতে হবে
প্রথম ধাপের উপজেলা নির্বাচন খুব বেশি ভালো হয়নি জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রাণহানির একটি ঘটনাও নেই। এ রকম একটা নির্বাচন আমরা করেছি। এই কৃতিত্ব আমাদের দিতে হবে। যে রকম ভোট হয়েছে, তাতে খুব বেশি ভালো বলবো না, তবে সন্তোষজনক হয়েছে। বিএনপি-জামায়াতসহ অনেক দল নির্বাচন বর্জন করেছে। এমন প্রতিকূল পরিস্থিতিতে ভোটের উপস্থিতি ৩৬ থেকে ৪০ শতাংশ কম নয়।

আওয়ামী লীগের হীরক জয়ন্তী
১৭ মে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালনের বিষয়ে তিনি বলেন, ১৭ মে উদযাপনে যথাযথ কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। ঢাকা মহানগর ও সহযোগী সব সংগঠন কেন্দ্রীয় কার্মসূচির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে কর্মসূচি গ্রহণ করবে। সব মহানগর, জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়নে একই কর্মসূচি পালিত হবে। আমাদের সবচেয়ে বড় প্রোগ্রাম হবে ২৩ জুন। আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী, হীরক জয়ন্তী। এ জন্য সারা দেশে আমরা ব্যাপকভাবে পালন করবো।

যৌথসভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রাজ্জাক, মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, কামরুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, হাছান মাহমুদ, দীপু মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বি এম মোজাম্মেল, মির্জা আজম, আফজাল হোসেন, আইন সম্পাদক নাজিবুল্লাহ হিরু, দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here