সাংবাদিক অধরাকে হয়রানি বন্ধে প্রধানমন্ত্রীকে ১৯ সংগঠনের চিঠি

0
144

আরটিভির স্টাফ রিপোর্টার অধরা ইয়াসমিনকে হয়রানি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন বন্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে যৌথ চিঠি দিয়েছে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও মানবাধিকার নিয়ে কাজ করা দেশি ও বিদেশি ১৯টি সংগঠন।

বৃহস্পতিবার (৩১ আগস্ট) এ চিঠি ইস্যু করা হয়েছে। তা প্রকাশ হয়েছে সাংবাদিকদের অধিকারবিষয়ক আন্তর্জাতিক সংগঠন কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টে (সিপিজে)।

রাজারবাগ দরবার শরিফ নিয়ে আরটিভিতে ২৯ এপ্রিল ভিডিও রিপোর্ট করার জন্য তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অধীনে তদন্ত করা হচ্ছে। চিঠিতে ইয়াসমিনসহ যাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে সব মামলা প্রত্যাহারের আহ্বান জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, মধ্য জুলাই থেকে বেআইনিভাবে অধরা ইয়াসমিনের ওপর নজরদারি করছেন রাজারবাগ দরবার শরিফের সদস্যরা। এ রিপোর্ট পেয়ে আমরা হতাশা প্রকাশ করছি। তারা তাকে অব্যাহতভাবে অনুসরণ করছে। তার বিরুদ্ধে আরও অভিযোগ ফাইল করার হুমকি দিচ্ছে।

এমনকি প্রতিবেদন প্রকাশ করার কারণে তিনি ও তার পরিবারকে প্রতিশোধ নেওয়ার হুমকি দিচ্ছে। কর্তৃপক্ষকে দ্রুততার সঙ্গে এসব হুমকির বিষয়ে তদন্ত করতে হবে। এর সঙ্গে জড়িতদের জবাবদিহিতায় আনতে হবে। ইয়াসমিনের শারীরিক ও মানসিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। চিঠিটির অনুলিপি পাঠানো হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, ধর্মমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান, পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন ও বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারপারসন কামাল উদ্দিন আহমেদের কাছে।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে কর্মরত বাংলাদেশি সাংবাদিকদের সংগঠন বিজেআইএম-এর এক মুখপাত্র জানান, উন্নত গণতন্ত্রের জন্য সংবাদপত্রের স্বাধীনতা অত্যাবশ্যক। এটি মানুষের কথা শোনার ও সত্য প্রকাশের সুযোগ দেয়। দুর্ভাগ্যজনকভাবে বাংলাদেশে সংবাদপত্রের অবাধ স্বাধীনতার অভাব উন্মুক্ত আলোচনা ও সুচিন্তিত সিদ্ধান্ত গ্রহণে বাধা সৃষ্টি করছে।

বিজেআইএম-এর এই মুখপাত্র আরও বলেন, আমরা কর্তৃপক্ষের কাছে আহ্বান জানাই ফৌজদারি বিচার ব্যবস্থা যেন সাংবাদিকদের সাংবাদিকতার জন্য হয়রানি বা ভয় দেখানোর হাতিয়ার না হয় এবং অধরা ইয়াসমিনের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার করা হয়।

চিঠিতে স্বাক্ষরকারী সংগঠনগুলো হলো- অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল, রবার্ট এফ কেনেডি হিউম্যান রাইটস, আর্টিক্যাল ১৯ সাউথ এশিয়া, এশিয়ান হিউম্যান রাইটস কমিশন, বাংলাদেশি জার্নালিস্টস ইন ইন্টারন্যাশনাল মিডিয়া, ক্যাপিটাল পানিশমেন্ট জাস্টিস প্রোজেক্ট, সিভিকাস: ওয়ার্ল্ড এলায়েন্স ফর সিটিজেন পার্টিসিপেশন, কোয়ালিশন ফর ওমেন ইন জার্নালিজম (সিএফডব্লিউআইজে), কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস, ফোরাম ফর ফ্রিডম অব এক্সপ্রেশন বাংলাদেশ, ফ্রি প্রেস আনলিমিটেড, আইএফইএক্স, ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন ফর হিউম্যান রাইটস, ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব জার্নালিস্টস, ইন্টারন্যাশনাল ওমেন্স মিডিয়া ফাউন্ডেশন, পেন আমেরিকা, পেন বাংলাদেশ, পেন ইন্টারন্যাশনাল ও রিপোর্টার্স উইদআউট বর্ডার্স।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here