রানির মর্যাদা পেলেন ক্যামিলা

0
138

খবর৭১: কুইন কনসোর্ট থেকে এবার রানির মর্যাদা পেরেন ক্যামিলা। রাজার সঙ্গে ক্যামিলার মাথায় উঠেছে মুকুট। রাজা তৃতীয় চার্লসের সঙ্গে মুকুট উঠলো ক্যামিলার শিরেও; হর্ষধ্বনি উঠল ‘রানি দীর্ঘজীবী হন’।

রাজকীয় আনুষ্ঠানিকতায় শনিবার চার্লসের অভিষেকের পর এখন আর কুইন কনসোর্ট নন, ব্রিটেনের রানি হিসেবে পরিগণিত হবেন ক্যামিলা।

শনিবার ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে একটি ঐতিহাসিক জমকালো অনুষ্ঠানে তাকে ব্রিটেনের রানির মুকুট পরানো হয়।

তার আগে রাজপরিবারের আনুষ্ঠানিক নিমন্ত্রণপত্র, চার্চ অব ইংল্যান্ডের প্রার্থনায় ও রয়্যাল কালেকশনের স্মরণিকায় ক্যামিলাকে কুইন বা কুইন ক্যামিলা হিসেবে তুলে ধরা হয়।

অভিষেকের আগমুহূর্তে বাকিংহাম প্যালেস টুইটে রাজপরিবারের অফিসিয়াল অ্যাকাউন্টে প্রথমবারের মতো ‘কুইন ক্যামিলা’ শব্দবন্ধ ব্যবহার করে।

খবর৭১: ফুল দিয়ে জাঁকজমকভাবে সাজানো অভিষেক অনুষ্ঠানস্থলের ভিডিও ফুটেজ শেয়ার করে টুইটে বলা হয়েছে, “ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবে রাজা চার্লস তৃতীয় ও কুইন ক্যামিলার অভিষেকের জন্য প্রস্তুত।”

২০০৫ সালে তখনকার প্রিন্স অব ওয়েলস চার্লসকে বিয়ের পর থেকেই ক্যামিলার উপাধি কী হবে, তা নিয়ে বিতর্ক চলছিল। কারণ সেসময় ক্যামিলা জানান, চার্লস রাজা হলে তিনি ‘প্রিন্সেস কনসোর্ট’ হিসেবে পরিচিত হতে চান।

পরবর্তীকালে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ তার সিংহাসনের আরোহণের ৭০ বছর পূর্তির দিনে জানান, তার একান্ত ইচ্ছা চার্লস রাজা হলে ক্যামিলাকে হবেন ‘কুইন কনসোর্ট’।

রাজার স্ত্রী স্বয়ংক্রিয়ভাবেই রানি, কিন্তু রাজপরিবারের আইন পরিবর্তনই ক্যামিলাকে সেটি হতে বাধা দিত।

অভিষেক নিমন্ত্রণে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথমবারের মতো ক্যামিলাকে ‘কুইন ক্যামিলা’ উল্লেখ করা হয়। বাকিংহাম প্যালেস বলছে, ৬ মে এর অনুষ্ঠানই ক্যামিলার এই উপাধি আনুষ্ঠানিকভাবে ব্যবহারের উপযুক্ত সময়।

চার্লস তার দীর্ঘদিনের প্রেমিকা ক্যামিলাকে বিয়ের পর থেকেই অনেক কিছুর পরিবর্তন হয়েছে। তার আগের স্ত্রী ডায়ানার সঙ্গে বিচ্ছেদের পেছনে ক্যামিলাকে দায়ী করা হয়। ডায়ানার সঙ্গে বিচ্ছেদের পর চার্লসের সহকারীরা একবার বলেছিলেন, তার আর বিয়ে করার ইচ্ছে নেই।

কিন্তু চার্লসের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়টি সামনে এলে ক্যামিলাকে ব্যাপক সমালোচনার শিকার হন। যদিও ডায়ানার বিচ্ছেদ ও তার মৃত্যুর পর ক্যামিলার প্রতি সুর নরম হয়। ধীরে ধীরে রাজপরিবারে তিনি গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে আসীন হন। স্টেট ওপেনিং পার্লামেন্টেও তিনি অংশ নেওয়া শুরু করেন।

দাতব্য কাজের মাধ্যমে সাক্ষরতা কার্যক্রম এগিয়ে নেওয়া, পারিবারিক নির্যাতন ও যৌন সহিংসতার সমস্যা তুলে ধরার মাধ্যমে ক্যামিলা তার নিজস্ব রাজকীয় প্রতিচ্ছবি তৈরি করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here