শাহরুখ ও তার ছেলেকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড়

0
95

খবর৭১ঃ
বড় ছেলে আরিয়ানকে নিয়ে ভীষণ উদ্বিগ্ন ছিলেন বলিউড কিং শাখরুখ খান। তবে পোশাকের নতুন ব্যবসা আরিয়ান শুরু করলে সেটাকে সমর্থন দেন শাহরুখ। শুধু সমর্থনের মধ্যে দিয়ে সীমাবদ্ধ থাকেননি, সেটির প্রচারে নেমে পড়েন তিনি।

তবে সেই ব্র্যান্ডের ওয়েবসাইটের যাত্রা শুরু হতে না হতেই তীব্র সমালোচনায় পড়েছে। পোশাকের অনেক বেশি দাম হওয়ায় শাখরুখ ও ছেলে আরিয়ানের ব্যাপক সমালোচনা করছে অনুরাগীরা। আরিয়ান খানের বিলাসবহুল পোশাকের ব্র্যান্ড ‘ডি অ্যাভল এক্স’।

রোববার এ ব্যান্ডের পথচলা শুরু হয়। এরপর থেকেই সমালোচনা শুরু হয় শাহরুখের ছেলের পোশাক ব্র্যান্ডের। তবে এ পোশাক ব্র্যান্ড নিয়ে অনুরাগীদের ব্যাপক আগ্রহ ছিল। এর কারণ হচ্ছে, ছেলের ব্যবসায় মডেলিং করছেন পিতা শাহরুখ খান।

এদিকে ওয়েবসাইট লঞ্চ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ব্যাপক পরিচিত পায় এ ব্র্যান্ডটি। একসঙ্গে অনেক লোক ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার ফলে শুরু হয় ঝামেলা। কিছুক্ষণ পরই ব্র্যান্ডটির টুইটারে একটি স্ট্যাটাস দেওয়া হয়, ‘আমরা খুব বেশি পরিমাণে ট্রাফিক এবং চেকআউটের সম্মুখীন হচ্ছি। অনুগ্রহ করে আমাদের সঙ্গে থাকুন। কিছু সময় পরে আবার জানানো হয়, ব্যবহারকারীরা সাইটটি সহজেই অ্যাক্সেস করতে পারবেন।

এদিকে সাইটে প্রবেশ করে পোশাকের দাম দেখে মাথায় হাত ওঠে ভক্তদের। টুইটারে শুরু হয় সমালোচনা। একাধিক ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারীরা দাম দেখে বেশ হতবাক হয়েছেন। কমেন্টে কড়া সমালোচনাও করেছেন। একজন লিখেছেন, ‘খান সাহেব আমি আমার একটি কিডনি বিক্রি করলেও একটা টি-শার্ট কিনতে পারব না’।

আরেকজন লিখেছেন, ‘দাম দেখতে এসেছিলাম। দাম দেখা হয়ে গেছে। চলে যাচ্ছি।’ তৃতীয়জন লিখেছেন, ‘এসব পাগলামি। এত দাম দিয়ে পোশাক কেনে কারা আমি তাদের দেখতে চাই।’

চতুর্থজন লিখেছেন, ‘টি-শার্ট ২৪ হাজার, জ্যাকেট ২ লাখ! এসবের কী মানে!’

আরিয়ানের ওয়েবসাইটে দেখা গেছে, প্রিন্টেড ডিজাইনের একটি সাদা টি-শার্টের দাম ২৪ হাজার টাকা। কালো হুডির দাম ছিল ৪৫ হাজার ৫০০ টাকা। একটি লেদার জ্যাকেটের দাম ২ লাখের বেশি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here