চার প্রতিষ্ঠানেই মজুদ ১২৬৪৮ লিটার তেল, জরিমানা ৩ লাখ

0
17

খবর৭১ঃ চারটি দোকান থেকে অবৈধভাবে মজুদ করা ১২ হাজার ৬৪৮ লিটার খোলা ও বোতলজাত সয়াবিন তেল পেয়েছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার ও সংরক্ষণ অধিদপ্তর। অবৈধ তেল মজুদের দায়ে চারটি প্রতিষ্ঠানকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করেছে।

বুধবার (১১ মে) গাজীপুরের টঙ্গীতে ‍বিশেষ অভিযান চালিয়ে এ জরিমানা করা হয়। জরিমানা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. আব্দুল জব্বার মন্ডল এবং মো. শরিফুল ইসলাম।

মো. আব্দুল জব্বার মন্ডল বলেন, ‘বাণিজ্যমন্ত্রীর নির্দেশনায় এবং জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের সার্বিক তত্ত্বাবধানে গাজীপুর ও ঢাকা জেলায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় গাজীপুর জেলার টঙ্গী এলাকায় অভিযান পরিচালনাকালে টঙ্গী বাজারের মেসার্স তাহের অ্যান্ড সন্স থেকে পুরানো রেটের ৬৭৩২ লিটারের খোলা সয়াবিন ও পাম তেল এবং মেসার্স নোয়াখালী বাণিজ্য বিতান থেকে পুরানো দরের পাঁচ হাজার ৯১৬ লিটার খোলা সয়াবিন ও পাম তেল উদ্ধার করা হয়।’

এ সময় উপস্থিত আগ্রহী ক্রেতাদের মাঝে পূর্বের দরে (১ লিটার ১৬০ টাকা, ২ লিটার ৩১৮ টাকা এবং ৫ লিটার ৭৬০ টাকা) এবং খোলা সয়াবিন ১৪৩ টাকা ও পাম ১৩৩ টাকা দরে বিক্রি করা হয় এবং প্রতিষ্ঠান দুটির প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে মোট দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

ঢাকা জেলার আশকোনা হাজি ক্যাম্প সংলগ্ন মুক্তিযোদ্ধা মার্কেটে পূর্বের দরের বোতলজাত সয়াবিন তেল যথাযথভাবে বিক্রি বা সরবরাহ না করে মজুদ করা এবং নির্ধারিত মূল্য অপেক্ষা অধিক মূল্যে বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি করার অপরাধে মেসার্স জননী এন্টারপ্রাইজকে ৫০ হাজার টাকা এবং একই অপরাধে টিটু এন্ড ব্রাদার্সকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

উপস্থিত আগ্রহী ক্রেতাদের মাঝে আগ্রহী ক্রেতাদের মাঝে পূর্বের দরে অবৈধভাবে মজুদকৃত বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি করা হয়। প্রতিষ্ঠান দুটি জনস্বার্থে সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়।

অভিযানে চারটি প্রতিষ্ঠানকে সর্বমোট তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয় এবং অবৈধভাবে মজুদকৃত ১২ হাজার ৮২২ লিটার ভোজ্যতেল আগ্রহী ক্রেতাদের মাঝে আগের দরে বিক্রি করা হয়। জনস্বার্থে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান ভোক্তা অধিকারের কর্মকর্তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here