বাগেরহাটে ৩ হাজার টমেটো গাছ কাটল দূর্বৃত্তরা

0
23

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট:
বাগেরহাটের কচুয়ায় এক কৃষকের তিন হাজার ফলন্ত টমেটো গাছ কেটে ফেলেছে দূর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার (১৬ নভে¤॥^র) গভীর রাতে কচুয়া উপজেলার বিশারখোলা মাঠে কৃষক দাউদ মৃধার ক্ষেতের এসব গাছ কাটে দূর্বৃত্তরা। ফলধরা বিপুল পরিমান এই গাছ কেটে ফেলায় ৭ থেকে ৮ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন কৃষক দাউদ মৃধা। গেল বছরও দাউদ মৃধা ও তার ভাইয়ের টমেটো গাছ কেটেছিল দূর্বৃত্তরা। শুধু দাউদ মৃধা ও তার ভাই নয়, গেল দুই বছর ধরে বিশারখোলা ও গজালিয়া এলাকার অন্তত বিশজন কৃষকের টমেটো গাছ কেটে ফেলে দূর্বৃত্তরা।
ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক দাউদ মৃধা বলেন, ৭৪ শতক জমি লিজ নিয়ে খেয়ে না খেয়ে অনেকে কষ্ট করে তিন হাজার গাছ লাগিয়েছি। জমি প্রস্তুত, ঘুরি দেওয়া, রোপন ও সার প্রদানে দুই লক্ষ টাকার উপরে ব্যয় হয়েছে। ১৫ দিন পরেই এসব গাছ থেকে টমেটো বিক্রি করতে পারতাম। তিন হাজার গাছে অন্তত ৮ লক্ষ টাকার টমেটো বিক্রি করতে পারতাম। আমাকে একদম শেষ করে দিয়ে গেল।
কে বা কারা কেন কেটেছে এমন প্রশ্নের জবাবে দাউদ মৃধা বলেন, এই টমেটোই আমার সব। রাত জেগে পাহারা দেই। শীত লাগার কারণে মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে বাড়িতে যাই। বুধবার সকালে এসে দেখি সব গাছ কাটা। কে কাটছে জানি না। আমাকে আর্থিকভাবে শেষ করে দেওয়ার জন্যই এই কাজ করেছে তারা।
শ্রমিক মোঃ রুহুল আমিন বলেন, দাউদ ভাইয়ের টমেটো খেতে অন্যান্য শ্রমিকদের সাথে আমিও বেশ কয়েকদিন কাজ করেছি। একটি টমেটো গাছে ফল আসা পর্যন্ত ৭০ থেকে ৮০ টাকা পর্যন্ত খরচ হয়ে যায়। যখন ফল বিক্রির সময় আসল তখনই এই কাজ করল।যারা এমন নৃশংস কাজ করেছে আমরা তাদের বিচার চাই।
দাউদের প্রতিবেশী কৃষক আলী আকবর বলেন, এই গাছ একজন কৃষকের সন্তানের মতন। যার গাছ কেটেছে একমাত্র সেই বুঝতেছে তার কি ক্ষতি হয়েছে।
স্থানীয় মোস্তফা দরানী ও আলী আকবর দরানী বলেন, শুধু এবার নয়, দুই বছর ধরে গজালিয়া ও বিশারখোলা এলাকার একটি সংঘবদ্ধ চক্র বিভিন্ন লোকের ফলন্ত গাছ কেটে ন্ষ্ট করছে। গেলবছরও দাউদ ও তার ভাই ওয়াদুদমৃধাসহ অন্তত ২০ জনের টমেটো গাছ কেটেছে চক্রটি। স্থানীয় জন প্রতিনিধি ও পুলিশ প্রশাসনের কাছে এই দুষ্টচক্রকে খুজে বের করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তারা।
ওয়াদুদ মৃধার স্ত্রী সুখি খানম বলেন, রাত আড়াইটা পর্যন্ত আমার ভাসুর (দাউদ মৃধা) টমেটো ক্ষেতে ছিল। যারাই এই গাছ কাটুক তারপরে কেটেছে। এত অল্প সময়ে একজন বা দ্ইুজন মানুষের পক্ষে এত বেশি গাছ কাটা সম্ভব নয়। যারা কেটেছে তারা একসাথে অন্তত ৫-৭জন এসেছিল। গাছ কাটার সময়, আমার ভাসুরকে (দাউদ মৃধা) পেলে মেরে ফেলতেও পারত। যেকোন মূল্যে এই চক্রটিকে খুজে বেরকরার দাবি জানান এই নারী কৃষক।
কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন, একজন কৃষকের টমেটো গাছ কাটার খবর পেয়েছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক অভিযোগ দিলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here