সৈয়দপুরে লকডাউনে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করায় ৫০ জনের জেল-জরিমানা

0
26

মিজানুর রহমান মিলন, সৈয়দপুর থেকে :
কঠোর লকডাউন চলাকালে সরকারি বিধি নিষেধ অমান্য করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে রাখা, প্রয়োজন ছাড়া অযথা ঘোরাফেরা এবং মুখে মাস্ক না থাকায় ব্যবসায়ীসহ ৫০ জেল জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এদের মধ্যে ১৯ জনের কারাদন্ড ও ৩১ জনের অর্থদণ্ডের রায় ঘোষণা করা হয়। আজ শনিবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত উপজেলা ও থানা পুলিশের যৌথ উদ্যোগে ওই আদালত পরিচালনা করা হয়। এতে নেতৃত্ব দেন সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী বিচারক মো. রমিজ আলম। আজ শনিবার কঠোর লকডাউনের তৃতীয় দিনে সৈয়দপুরে সরকারি আদেশ অমান্য করে ব্যবসায়ী ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষজন দোকানপাট খুলে ব্যবসা পরিচালনাসহ অযথা ঘোরাফেরা করা হচ্ছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এরই প্রেক্ষিতে উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশ যৌথভাবে শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান শুরু করে। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত চলা এ অভিযানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়ীসহ অন্যান্য শ্রেনী পেশার ৫০ জনকে আটক করা হয়। পরে শহরের পাঁচমাথা মোড়ে ট্রাফিক বক্সের সামনে আদালত বসানো হয়। এসময় কঠোর লকডাউনে সরকারি আদেশ অমান্য করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পণ্য বেচাকেনা, অযথা ঘোরাফেরা ও মুখে মাস্ক না থাকার দায়ে ৫০ জনের জেল-জরিমানার রায় ঘোষণা করা হয়। এদের মধ্যে ১৯ জনের বিরুদ্ধে ১৫ দিন করে বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ৩১ জনকে ২০০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকা করে ৩৫ হাজার ৭০০ টাকা জরিমানা করা হয়। আদালতের এসব রায় ঘোষণা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) আদালতের নির্বাহী বিচারক মো. রমিজ আলম। দন্ড প্রাপ্তদের আজ বিকেলে নীলফামারী জেলহাজতে পাঠিয়েছে থানা পুলিশ। এব্যাপারে জানতে চাইলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. রমিজ আলম বলেন,করোনা সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে সরকার কঠোর লকডাউন ঘোষনা করেছে। এজন্য মানুষজনকে সচেতন করতে প্রশাসন নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। কিন্তু লোকজন তা মানছেনা। ফলে উপজেলা ও থানা পুলিশের যৌথ উদ্যোগে লকডাউনের তৃতীয় দিনে সৈয়দপুরে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। এতে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে ব্যবসা পরিচালনাসহ অযথা ঘোরাফেরা করা এবং মুখে মাস্ক না থাকায় ৫০ জনকে আটক করে জেল,জরিমানা করা হয়। তাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে জানিয়ে জানান তিনি। উপজেলা ও থানা প্রশাসনের যৌথ অভিযানে এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল হাসনাত খান, পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আতাউর রহমান, ট্রাফিক বিভাগের শহর ও যানবাহন পরিদর্শক মো. আবু নাহিদ পারভেজ চৌধুরী ও জ্যোতির্ময় রায়, থানার অন্যান্য কর্মকর্তা,পৌর কাউন্সিলর যথাক্রমে শাহীন আক্তার শাহীন,জোবায়দুল ইসলাম মিন্টু,এরশাদ হোসেন পাপ্পু, নজরুল ইসলাম রয়েল, সৈয়দপুর সিটি কর্পোরেশন বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক তামিম রহমানসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এদিকে লকডাউন চলাকালে আইন অমান্য করায় ৫০ জন আটকের ঘটনায় শহরে মানুষজনের চলাচল কমে যায়। অপরদিকে আজ শনিবার সেনা বাহিনীর দুটি দলও সৈয়দপুর শহরে টহল দিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here