মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার প্রাকৃতিক উপায়

0
29

খবর৭১ঃ

অবাঞ্ছিত লোম নিয়ে যেকোনো মেয়েই বিব্রত এবং দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। ডাক্তারি ভাষায় এই অবাঞ্ছিত লোম বৃদ্ধিকে হারসুটিজম বলা হয়। মেয়েদের শরীরে স্বাভাবিকভাবে এন্ড্রোজেন বা পুরুষ হরমোনের পরিমাণ খুব অল্প। কিন্তু কখনো ডিম্বাশয় বা এডরেনাল গ্রন্থি থেকে এই এন্ড্রোজেন অধিক পরিমাণে তৈরি হলে বা এন্ড্রোজেনের অধিক কার্যকারিতার কারণে এই হারসুটিজম দেখা দিতে পারে।

প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে শরীরের অবাঞ্ছিত লোম অপসারণের পদ্ধতি হল ‘সুগারিং’। আর নামের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে পদ্ধতিটির প্রধান উপাদানই হল ‘সুগার’ অর্থাৎ চিনি। সঙ্গে মেশাতে হবে লেবুর রস ও পানি। প্রাকৃতিক এসব ঘরোয়া টোটকা মুখের অযাচিত চুল মুছে ফেলতে সহায়তা করবে। মুখে অবাঞ্ছিত চুল এমন একটি সমস্যা যা থেকে বেশিরভাগ মহিলারাই মুক্তি পেতে চান।

প্রায় তিন মিনিট এই মিশ্রণটি গরম করুন। প্রয়োজনে মিশ্রণটি পাত্রে পানি যোগ করুন। পেস্টটি ঠান্ডা হয়ে যাওয়ার পরে চুলের বৃদ্ধির উপর পেস্টটি লাগিয়ে দিন।এখন একটি ওয়াক্সিং স্ট্রিপ বা একটি সুতির কাপড় ব্যবহার করুন। এটির সাহায্যে চুল বাড়ার বিপরীত দিকে টানুন। মধু ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করতে সহায়তা করবে।

আপনি চিনি এবং লেবু দিয়ে মুখের লোম দুর করে ফেলতে পারেন। কারণ চিনি একটি প্রাকৃতিক এক্সফোলিয়েটিং এজেন্ট এবং গরম চিনি আপনার চুলের সাথে লেগে থাকে। যেখানে লেবুর রস সেই মুহূর্তে প্রাকৃতিক ব্লিচ হিসাবে কাজ করে।

প্রথমে ৮-৯ টেবিল চামচ পানিতে দুই চামচ চিনি এবং লেবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে। গরম করার পর ঠান্ডা করুন। প্রায় ২০-২৫ মিনিটের জন্য রেখে দিন। বৃত্তাকার গতিতে ঘষে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ওটমিল এবং কলা মুখের লোম দূর করে ফেলতেও সহায়তা করে। এই পদ্ধতিটি বেশ সহজ। ওটমিল একটি দুর্দান্ত, হাইড্রেটিং স্ক্রাব তৈরি করে এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলোতে সমৃদ্ধ। এটি আপনার ত্বক থেকে লালচেভাব দূর করতেও সহায়তা করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here