মেঝেতে শিক্ষিকার রক্তাক্ত লাশ, ফ্যানে ঝুলছিল গৃহকর্মী

0
39

খবর৭১ঃ
সিলেটের ওসমানীনগরে একটি বাসা থেকে এক স্কুলশিক্ষিকা ও তার গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার দিবাগত রাত সোয়া নয়টার দিকে লাশ দুটি উদ্ধার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীটি।

নিহতরা হলেন শিক্ষিকা তপতী রানি দে এবং গৃহকর্মী গৌরাঙ্গ বৈদ্য। তপতী রানি সোয়ারগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা। তিনি চিকিৎসক বিজয় ভূষণ দে’র স্ত্রী। নিহত গৌরাঙ্গ বৈদ্যর বাড়ি বিশ্বনাথের দশঘর গ্রামে। কয়েক বছর ধরে তিনি ওই বাড়িতে কাজ করছিলেন।

লাশ উদ্ধারের তথ্য নিশ্চিত করে সিলেটের পুলিশ সুপার মো. ফরিদ উদ্দিন জানান, তপতী রানির ছেলেও চিকিৎসক। তারা পেশাগত কাজে বাইরে ছিলেন। বাড়িতে তপতী ও গৌরাঙ্গই ছিলেন। রাতে তপতী রানির ছেলে বিপ্লব দে বাড়ি ফিরে ডাকাডাকি করে কোনো সাড়া না পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ বাড়ির বাথরুমের জানালা ভেঙে ঘরে ঢুকে মেঝেতে তপতী রানির রক্তাক্ত মৃতদেহ দেখতে পায়। এছাড়া পাশে ফ্যানের সঙ্গে গৌরাঙ্গ বৈদ্যর মৃতদেহ গামছা দিয়ে ফাঁস লাগানো অবস্থায় দেখতে পায়।

তাদের মৃত্যুর কারণ এখনো বের করতে পারেনি পুলিশ। তপতীকে হত্যা করে গৌরাঙ্গ বৈদ্য আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। পুলিশ কারণ উদঘাটনের চেষ্টা করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here