শেষ বিদায়ের বন্ধু সংগঠনের প্রথম বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠিত

0
12

রেদেয়ান হোসেন জনিঃ
করোনাকালীন মৃত ব্যক্তির গোসল ও দাফন কাফনের জন্য প্রতিষ্ঠিত সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন শেষ বিদায়ের বন্ধু’র প্রথম বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সংগঠনের প্রধান কার্যালয় ও রামগড় শাখার উদ্যোগে আলাদাভাবে খতমে কুরআন, আলোচনা সভা, দোয়া ও মুনাজাত আয়োজন করা হয়। প্রধান কার্যালয়ে সমন্বয়ক (সেবা) আলহাজ্ব নিজাম উদ্দিনের সঞ্চালনায় প্রধান সমন্বয়ক নুরুল আলমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বারইয়ারহাট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব মাওলানা নিজাম উদ্দিন আনসারী। প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মিরসরাই সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইমরান উদ্দিন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের প্রধান ধর্মীয় পরামর্শক হাফেজ মাওলানা শোয়াইব, জোরারগঞ্জ থানা টিম লিডার কারী নোমান, মিরসরাই থানা টিম লিডার মাওলানা জাফর উল্লাহ, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী। এসময় বিভিন্ন ইউনিয়নের টিম লিডার ও প্রতিষ্ঠাতা সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভা শেষে মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিনহাজুর রহমান এর পরিবারসহ করোনায় আক্রান্তদের সুস্থতা কামনা এবং সংগঠনের সকল সদস্যসহ সর্বস্তরের দেশবাসীর জন্য মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কাছে দোয়া করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন বারইয়ারহাট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব মাওলানা নিজাম উদ্দিন আনসারী।

বক্তব্যে নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, করোনাকালীন শেষ বিদায়ের বন্ধু সংগঠনের অবদান মহান আল্লাহ পরকালে অবশ্যই প্রত্যেক সদস্য কে দিবেন। করোনার সময় মানুষ প্রত্যক্ষ করেছে অমানবিকতার ভয়ংকর নিষ্ঠুর ঘটনা । করোনা একদিকে মহান রবের রহমত অন্যদিকে বান্দার কর্মফল। একদিকে মানুষের বিজ্ঞান চর্চায় অগ্রগতি ও সাফল্যের অহংকার তছনছ করে দিয়েছেন। অপরদিকে বন্দাকে ভুল পথ ছেড়ে আত্নসমর্পন করে আল্লাহর দিকে ফিরে আসার জন্য ডাকছেন। ইনশাআল্লাহ এ সংগঠন বিভিন্ন মানবিক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে যুগযুগ মানুষকে সেবা দিয়ে যাবে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন।

রামগড় উপজেলা শাখার উদ্যোগে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বৃহস্পতিবার, আসরের নামাজের পর রামগড় উপজেলা শাখার সমন্বয়ক মাওলানা শহিদুল্লার সভাপতিত্বে পুরান রামগড় ইসলামিয়া আজিজুল উলুম কাজীবাড়ী মাদ্রাসায় দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বক্তারা বলেন, মৃত্যু ও আক্রান্তের রেকর্ড ছাড়িয়ে যাচ্ছে প্রতিদিন। এই মুহুর্তে সচেতন না হলে মৃত্যুর হার ভয়াবহ ভাবে বাড়তে পারে। তাই সরকারি নির্দেশনার পাশাপাশি শেষ বিদায়ের বন্ধু সংগঠনের সদস্যদের প্রস্তুত থাকতে হবে যে কোন পরিস্থিতিতে মানবিক সেবার দেওয়ার জন্য।

উল্লেখ্য, শেষ বিদায়ের বন্ধু সংগঠন গত একবছরের মিরসরাই, ফেনী, রামগড় ও সেনবাগে ৯০ জন মৃত ব্যক্তির দাফন কাপন সম্পন্ন করেছে। এছাড়াও প্রধান কার্যালয় থেকে ২৪ ঘন্টা অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস, অক্সিজেন সেবা সার্ভস ও উন্নত ব্যবস্থাপনায় মৃত ব্যক্তির গোসল খানায় লাশ ধোয়ানোর সেবা চলছে। করোনাকালীন মিরসরাই বাসির শেষ ভরসা হয়ে উঠেছে শেষ বিদায়ের বন্ধু সংগঠন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here