শনাক্তের হার ১০ মাসে সর্বনিম্ন, আরও ৮ মৃত্যু

0
23

খবর৭১ঃ

গত এক দিনে বাংলাদেশে আরও ৩০৫ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। পরীক্ষার বিপরীতে একদিনে সংক্রমণের হার কমে ২.৫১ শতাংশে নেমে এসেছে, যা গত ১০ মাসের মধ্যে সবচেয়ে কম।

গত বছরের ৫ এপ্রিল সর্বনিম্ন শনাক্তের হার ছিল ৪ দশমিক ৯০ শতাংশ। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও আটজনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে সুস্থ হয়েছেন ৪১৭ জন।

শনিবার বিকালে সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির সবশেষ এই তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, গত একদিনে যে আটজন মারা গেছেন তাদের মধ্যে ছয়জন পুরুষ ও দুইজন নারী। মৃতদের মধ্যে ৩১-৪০ বছরের মধ্যে দুইজন রয়েছেন। ৪১-৫০ বয়সের মধ্যে একজন, ৫১ থেকে ৬০ বয়সের মধ্যে একজন রয়েছেন। বাকি চারজন ষাটোর্ধ। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়ালো ৮ হাজার ১৯০ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশের ২০৬টি ল্যাবে ১২ হাজার ১৩৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে শনাক্ত হয়েছেন ৩০৫ জন। এতে পরীক্ষার বিপরীতে একদিনে সংক্রমণের হার ২.৫১ শতাংশ হয়েছে। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৪.৩৯ শতাংশ।

বাংলাদেশে গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। দেশে সংক্রমণ শুরুর দিকে রোগী শনাক্তের হার কম ছিল। গত মে মাসের মাঝামাঝি থেকে সংক্রমণ বাড়তে শুরু করে। আগস্টের তৃতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত সেটি ২০ শতাংশের ওপরে ছিল। মাস দুয়েক সংক্রমণ নিম্নমুখী থাকার পর গত নভেম্বরের শুরুর দিক থেকে নতুন রোগী ও শনাক্তের হারে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা শুরু হয়। পরে নভেম্বরের মাঝামাঝি থেকে দৈনিক নতুন রোগী শনাক্তের গড় দুই হাজার ছাড়ায়। আর গত ১০ ডিসেম্বর থেকে নতুন রোগী শনাক্ত এবং শনাক্তের হার কম।

এ পর্যন্ত ৩৭ লাখ ৩৬ হাজার ৬০৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে মোট শনাক্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৩৭ হাজার ৭৭০ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে গত এক দিনে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ৪১৭ জন রোগী করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন। তাদের নিয়ে এ পর্যন্ত সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪ লাখ ৮২ হাজার ৮৪১ জন।

প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর গতবছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ২৯ ডিসেম্বর তা সাড়ে সাত হাজার ছাড়িয়ে যায়। এর মধ্যে গত বছরের ৩০ জুন এক দিনেই ৬৪ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয়, যা এক দিনের সর্বোচ্চ মৃত্যু।

করোনার টিকা আসলেও বাইরে বের হলে মুখে মাস্ক পরে ও কিছু সময় পরপর সাবান-পানি দিয়ে হাত ধোয়ার বিধি মেনে চলতে পরামর্শ দিয়েছেন স্বাস্থ্যবিদরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here