ক্ল্যাসিক্যাল সংগীতের নক্ষত্র পণ্ডিত যশরাজ আর নেই

0
89
ক্ল্যাসিক্যাল সংগীতের নক্ষত্র পণ্ডিত যশরাজ আর নেই

খবর৭১ঃ

ভারতীয় ক্ল্যাসিক্যাল সংগীতের উজ্জল নক্ষত্র পণ্ডিত যশরাজ আর নেই। সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সিতে হার্ট অ্যার্টাকে তার মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুকালে এই সঙ্গীত সাধকের বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। সংবাদ সংস্থা এএনআইকে তার মৃত্যু সংবাদ নিশ্চিত করেছেন কন্যা দুর্গা যশরাজ।

পণ্ডিত যশরাজের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, অনেক দিন ধরেই বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যায় ভুগছিলেন এই গুণী সংগীত শিল্পি। শাস্ত্রীয় সংগীতের জন্যে ভারতে পদ্মবিভূষণ, পদ্মভূষণ, পদ্মশ্রীর মতো একাধিক পুরস্কার রয়েছে তার ঝুলিতে। এছাড়াও বিদেশি পুরস্কার ও সম্মানও অর্জন করেছেন তিনি।

তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

১৯৩০ সালের জানুয়ারি মাসে হরিয়ানার হিসারে জন্মগ্রহণ করেন যশরাজ। মধ্যবিত্ত ব্রাহ্মণ পরিবার। খুব স্বাভাবিকভাবেই শাস্ত্রীয় সংগীতের প্রতি ভালোবাসা জন্মায় ছোটবেলা থেকেই। বাবা পণ্ডিত মতিরামের কাছেই প্রথম শাস্ত্রীয় সংগীতের তালিম নেন যশরাজ। কিন্তু সেই তালিম পূর্ণ হওয়ার আগেই মাত্র চার বছর বয়সে বাবাকে হারান যশরাজ।

তার বড় দাদা, পণ্ডিত প্রতাপ নারায়ণও শাস্ত্রীয় সংগীতের একজন মহান শিল্পী ছিলেন, যার দুই ছেলে যতীন-ললিত পরবর্তীকালে সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে বলিউডে প্রভূত খ্যাতি অর্জন করেন।

গুজরাটের সানন্দ থেকে মেওয়াতি ঘরানার সংগীতের তালিম নিয়েছিলেন যশরাজ। ১৯৪৬ সালে কলকাতায় চলে আসেন পণ্ডিত যশরাজ। সারা বিশ্বেই ভারতীয় শাস্ত্রীয় সংগীত বললেই একবাক্যে উঠে আসত যশরাজের নাম।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো বলছে, গত বছর মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা পণ্ডিত যশরাজের নামে একটি ছোট গ্রহের নামকরণ করে। ভারতীয় সংগীতের প্রথম শিল্পী হিসেবে এই দুর্লভ সম্মান পান পণ্ডিত যশরাজ।

৯০ বছরের এই ক্ল্যাসিক্যাল গায়কের নামে গ্রহটির নাম দেওয়া হয় ‘পণ্ডিত যশরাজ (৩০০১২৮)’। এই ছোট গ্রহটিকে ২০০৬-এর ১১ নভেম্বর খুঁজে পাওয়া যায়। মঙ্গল ও বৃহস্পতির মাঝে একটি গ্রহাণুপুঞ্জে একটি ছোট গ্রহটির অবস্থান। এর আগে তার নামে একখণ্ড চাঁদের নাম রাখা হয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here