সৈয়দপুরে রোগাক্রান্ত মাংস বিক্রির দায়ে দুই কসাইয়ের অর্থদন্ড ৮৪ কেজি মাংস ধ্বংস

0
183
দাখিল পরীক্ষায় সৈয়দপুরে ১৬ মাদ্রাসার সন্তোষজনক ফলাফল

মিজানুর রহমান মিলন, সৈয়দপুর প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর সৈয়দপুরে রোগাক্রান্ত গরুর মাংস বিক্রি করার দায়ে দুই ব্যবসায়ীর (কসাই) ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। আজ মঙ্গলবার আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. রমিজ আলম ওই দন্ডাদেশ দেন। এসময় মাংস ব্যবসায়ীদের দোকানে থাকা ৮৪ কেজি মাংস জব্দ করে ধ্বংস করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ঢেলাপীর হাটের মাংস ব্যবসায়ী (কসাই) এনামুল হক (৩০) ও শামীম (৩০) ঘটনার দিন আজ (মঙ্গলবার) সকালে সৈয়দপুর শহরের উপকন্ঠ ঢেলাপীর হাটে একটি রোগাক্রান্ত গরু জবাই করে মাংস বিক্রি করছিলেন।

ওইসব মাংস কিনে মাংসের অবস্থা দেখে কয়েকজন ক্রেতার সন্দেহ হয়। পরে বিশ্বস্ত সূত্রে খবর পেয়ে সৈয়দপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. রমিজ আলমের নেতৃত্বে ঢেলাপীর হাটে অভিযান চালিয়ে রোগাক্রান্ত গরুর মাংস বিক্রি সময় মাংস ব্যবসায়ী (কসাই) এনামুল হক ও শামীমকে হাতেনাতে আটক করা হয়। পরে সেখানেই ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে রোগাক্রান্ত গরুর মাংস বিক্রির দায়ে কসাই এনামুল হক ও শামীমের ১০ হাজার করে মোট ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করা হয়। দন্ডপ্রাপ্ত এনামুল হক উপজেলার কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের মো. একরামুল হক একরা এবং শামীম বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের পূর্ব বোতলাগাড়ীর মো. জাবেদ আলীর ছেলে। এসময় ভ্রাম্যমান আদালতের উপস্থিতিতে ওই দুই ব্যবসায়ীর দোকান থেকে রোগাক্রান্ত গরুর ৮৪ কেজি মাংস জব্দ করে মাটিতে পুঁতে ধ্বংস করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে সৈয়দপুর পৌরসভা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর মো. আলতাফ হোসেন সরকার ও থানার উপ-পরিদর্শক মো. সবুজ আলীসহ পুলিশ সদস্যরা সহযোগিতা করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here