মিরসরাইয়ে মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্বোধন

0
28

রেদোয়ান হোসেন জনি, মিরসরাইঃ

মিরসরাই উপজেলা মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র উদ্বোধন করা হয়েছে। দেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার (১০জুন) প্রথম পর্যায়ে ৫০টি দৃষ্টিনন্দন মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে এই উদ্বোধন ঘোষণা করেন তিনি।

এসময় মিরসরাইয়ে উপজেলা মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র উদ্বোধন করেন সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি।

এসময় মিরসরাইয়ের সাংবাদিক, প্রশাসনের কর্মকর্তা, রাজনৈতিক দলের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মী ও সর্বস্তরের মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
দেশে ইসলামের প্রচার, প্রসার ও উন্নয়নে জেলা, উপজেলায় মোট ৫৬০টি এ ধরণের মসজিদ তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

সূত্রমতে, ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে গণপূর্ত অধিদপ্তরের অবকাঠামোয় ইসলামি ফাউন্ডেশনের বাস্তবায়নে ইসলামের ভ্রাতৃত্ব ও মূল্যবোধের প্রচার, উগ্রবাদের বিরুদ্ধে ইসলামের প্রকৃত মর্মবাণী সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছাতেই এসব প্রকল্প হাতে নেয়া হয়।

মিরসরাই উপজেলা সম্প্রসারিত ভবনের পাশে নির্মিত মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটি বি-ক্যাটাগরি হিসেবে ৪০ শতাংশ জমির উপর নির্মিত হয়েছে। তৃতীয়তলা ভিত্তি বিশিষ্ট তৃতীয়তলা মডেল মসজিদ (টাইপ-বি) প্রতি ফ্লোরের আয়তন ১ হাজার ৬৮০ দশমিক ১৪ বর্গমিটার।
ভবনের মোট আয়তন ২৯,৬০০ বর্গফুট। বাস্তবায়ন ব্যয় ১৩ কোটি ৪১ লাখ ৮০ হাজার টাকা। সারা দেশে নির্মাণাধীন মডেল মসজিদের ভৌত অবকাঠামো গণপূর্ত অধিদপ্তরের মাধ্যমে বাস্তবায়িত হচ্ছে। বাস্তবায়নকারি সংস্থা ইসলামিক ফাউন্ডেশন। উদ্যোগী মন্ত্রণালয় ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়। মিরসরাই উপজেলা মডেল মসজিদে একসঙ্গে ৯শত মানুষের নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা রয়েছে।

মসজিদের নির্মাণ কাজে নিয়োজিত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স জাকির হোসেন-মহসিন-জব্বারিয়া (জেভি) এর সাইড ইঞ্জিনিয়ার ওমর ফারুক জানান, আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত সুবিশাল মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কমপ্লেক্সে নারী ও পুরুষের আলাদা ওযু ও নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা রয়েছে, লাইব্রেরি, গবেষণা কেন্দ্র, ইসলামিক বই বিক্রয় কেন্দ্র, কোরআন হেফজ বিভাগ, শিশু শিক্ষা, অতিথিশালা, বিদেশি পর্যটকদের আবাসন, মৃতদেহ গোসলের ব্যবস্থা, হজযাত্রীদের নিবন্ধন ও প্রশিক্ষণ, ইমামদের প্রশিক্ষণ, অটিজম কেন্দ্র, গণশিক্ষা কেন্দ্র, ইসলামী সংস্কৃতি কেন্দ্র রয়েছে। এছাড়া ইমাম-মুয়াজ্জিনের আবাসনসহ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য অফিসের ব্যবস্থা এবং গাড়ি পার্কিং সুবিধা রাখা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here