সৈয়দপুরে ঝিমিয়েপড়া ফাইলেরিয়া হাসপাতালের কার্যক্রম শুরুর উদ্যোগ

0
93

মিজানুর রহমান মিলন, সৈয়দপুর :
ঝিমিয়ে পড়া বিশ্বের সর্বপ্রথম সৈয়দপুর ফাইলেরিয়া হাসপাতালের চিকিৎসা কার্যক্রম নতুন করে চালুর উদ্যোগ গ্রহণ করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। আজ মঙ্গলবার দুপুরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ওই ঘোষণা দেয়া হয়। ইন্সটিটিউট অব এলার্জি এন্ড ক্লিনিক্যাল ইমোলজি বাংলাদেশ’র (আইএসিআইবি) সহযোগী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ প্যারা মেডিকেল ডাক্তার এসোসিয়েশনকে (বিপিডিএ) হাসপাতালটি পরিচালনার দায়িত্ব প্রদান করেছে। উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের ধলাগাছ এলাকায় হাসপাতাল ভবনের সম্মেলন কক্ষে ওই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে হাসপাতালের বর্তমান অবস্থার কথা তুলে ধরে ভবিষ্যত পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য বিস্তারিত বিষয়ে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির সেবা উন্নয়ন ও অভ্যন্তরীণ হিসাব নিরীক্ষক ও সমাজসেবী ফয়েজ আহমেদ।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, ২০০২ সালে হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু হয়। এটি পরিচালিত হত আইএসিআইবি কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানে। পরে আইএসিআইবি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে স্থানীয় কমিটির মতপার্থক্যের কারণে ২০১২ সালে হাসপাতালটি ছেড়ে যায় তারা। সে সময় থেকে স্থানীয় কমিটি হাসপাতালটি পরিচালনা করে আসছে। এর মধ্যে গত ১৪ মে স্থানীয় কমিটির প্রধান ডা. সুরত আলী বাবু মৃত্যুবরণ করলে এর সকল কার্যক্রম ঝিমিয়ে পড়ে। এ অবস্থায় হাসপাতালে কার্যক্রম নতুন করে চালু করতে স্থানীয় কমিটির সঙ্গে সমঝোতা হয় আইএসিআইবির সহযোগী প্রতিষ্ঠান বিপিডিএ’র। এই সমঝোতার ভিত্তিতে হাসপাতালটি নতুন করে চালু সব প্রস্তুত গ্রহণ করা হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়। এতে বলা হয়, হাসপাতালটির ভবন সংস্কার ও অন্যান্য উন্নয়ন কাজের জন্য আগামী কিছুদিন ইনডোরের যাবতীয় কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। তবে আউডটোরে রোগী সেবাসহ অন্যান্য কার্যক্রম চালু থাকবে বলে জানানো হয়। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জিকো আহমেদ, সহ-সভাপতি এসএম মাহবুবুল হক মিঠু, সাধারণ সম্পাদক মো. গোলজার হোসেন, সহ-সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য মো. মমিনুল ইসলাম, আইএসিআইবি’র প্রতিনিধি ও বাংলাদেশ প্যারা মেডিকেল ডাক্তার এসোসিয়েশনের নির্বাহী চেয়ারম্যান রাকিবুল ইসলাম তুহিন, হাসপাতালের সাবেক পরিচালক প্রয়াত ডা. সুরত আলী বাবুর পুত্র বর্তমান হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির এডমিন অফিসার মোস্তাফিজার রহমান মিলন প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here