ফলোঅনে পড়া বাংলাদেশ দল রয়েছে ইনিংস ব্যবেধানে হারের শঙ্কায়। এর মাঝে সুখবর লিটন দাসের ফিফটি। আর তাতে দুইশর ঘর পার করে বাংলাদেশ দল। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২১৩ রান। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ১২৬ রানে অলআউট হওয়া বাংলাদেশ দলকে ফলো-অনে ফেলে নিউজিল্যান্ড। ফলো-অনে পড়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে বেশ সাবধানী শুরু করেন দুই ওপেনার সাদমান ও নাঈম। নিউ জিল্যান্ডের দুই পেসার ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউদির প্রথম স্পেল কোনো বিপদ ছাড়াই ভালোভাবে কাটিয়ে দেন তারা। কিন্তু ১৪তম ওভারে পেসার জেমিনসনের লেগ স্টাম্পের ওপরের বল। চাইলেই বলটা ছেড়ে দিতে পারতেন সাদমান ইসলাম। কিন্তু আলগা এক শট উইকেটের পেছনে টম ব্লান্ডেল দারুণ এক ক্যাচ নিয়ে সাজঘরের পথ দেখালেন বাঁহাতি ওপেনারকে। আউট হওয়ার আগে করেন ২১ রান। দ্বিতীয় উইকেটে নাঈমকে সঙ্গে নিয়ে ইতিবাচক ব্যাট করতে থাকেন নাজমুল হোসেন শান্ত। এ সময় দুজন মিলে গড়েন ৪৪ রানের জুটি। লাঞ্চ বিরতির ঠিক আগের ওভারে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফেরেন শান্ত। ৩৬ বল খেলেন করেন ২৯ রান। আর ৯৮ বল খেলে ব্যক্তিগত ২৪ রানে সাউদির করা বলে লাথামের হাতে ক্যাচ তুলে দেন ওপেনার নাঈম শেখ। আর কট বিহাইন্ড হওয়ার আগে মুমিনুলের ব্যাট থেকে আসে ৩৭ রান। আগের ইনিংসের একমাত্র হাফ-সেঞ্চুরিয়ান ইয়াসির রাব্বি করেন মাত্র ২ রান। এদিকে ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে প্রতিরোধ গড়ার ক্ষুদ্র প্রয়ান চালাচ্ছেন লিটন-সোহান। দুজন মিলে তুলেছেন অপ্রতিরোধ্য ৮৯ রানের জুটি। এখন ৬৪ রানে লিটন এবং ২৯ রানে সোহান ব্যাট করছেন।

0
22

খবর৭১ঃ বিশ্বজুড়ে শুরু হয়েছে করোনাভাইরাসের তৃতীয় ঢেউ। প্রতিনিয়ত বাড়ছে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা ও শনাক্ত। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সাড়ে ৪ হাজারের বেশি মানুষ। একই সময়ে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে প্রায় ২০ লাখে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪ হাজার ৫১২ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে ১২০০-র বেশি। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৫৫ লাখ ১১ হাজার ৬৩১ জনে। একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ লাখ ৮০ হাজার ৫৪৫ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে সোয়া লাখের বেশি। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১ কোটি ৬ লাখ ৫২ হাজার ২০৫ জনে।

সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। আর সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রাশিয়া। এরপরই রয়েছে ফ্রান্স, ইতালি, জার্মানি, ফিলিপাইন ও হাঙ্গেরি।

ওয়ার্ল্ডওমিটারস এর তথ্য অনুযায়ী গত এক দিনে যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৫৭ হাজার ৮৯৯ জন এবং মারা গেছেন ৯১১ জন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৬ কোটি ২৪ লাখ ১৪ হাজার ৪৯৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৮ লাখ ৬১ হাজার ১৮৪ জন মারা গেছেন।

অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রাশিয়া। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭৪১ জন এবং নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ১৫ হাজার ৮৩০ জন। এছাড়া মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৬ লাখ ৬৬ হাজার ৬৭৯ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ১৬ হাজার ৯০৪ জনের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here