যেসব খাবার একসঙ্গে খেলে বিষক্রিয়া হতে পারে

0
42

খবর৭১ঃ
আধুনিক বিজ্ঞান এবং আয়ুর্বেদ শাস্ত্র মতে কিছু খাবার একসঙ্গে খাওয়া ঝুঁকিপূর্ণ। খাওয়ার পর যেকোনো খাবার হজমপ্রক্রিয়ার মধ্যে ভেঙে বিশেষ উপাদান হিসেবে শরীরে জমা হয়। এক খাবারের সঙ্গে আরেকটি খাবারের উপাদান ঠিকমতো না মিশলে তা বিপত্তি ঘটাতে পারে। কিছু খাবার আছে যেগুলো একসঙ্গে খেলে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

দুধ ও কলা

অনেকে সুস্থ থাকতে দুধের সঙ্গে কলা মিশিয়ে খান, এই কম্বো হজম করা অত্যন্ত কঠিন। কারণ দুধ কলার সংমিশ্রণটি শরীরে টক্সিন তৈরি করতে পারে। এমনকি যারা ওজন কমাতে এই সংমিশ্রণটি নিচ্ছেন তাদের ক্ষেত্রেও এই সংমিশ্রণটি ক্ষতিকারক। এর ব্যবহারের ফলে ফ্যাট-স্টোরেজ হরমোন এবং ইনসুলিন বৃদ্ধি পেতে পারে।

দুধ এবং চা

প্রায়শই মানুষ দুধের সঙ্গে চা পান করতে পছন্দ করেন। তবে এটি করা সম্পূর্ণ ভুল। দুধ এবং চা একত্রে খেলে ব্যক্তির স্বাস্থ্যের উপর গভীর প্রভাব ফেলতে পারে। আসলে, চায়ে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি বৈশিষ্ট্য রয়েছে। দুধ এবং চা একসঙ্গে মিশিয়ে খেলে চায়ের ভালো গুণাগুণ নষ্ট করে দেয়। তাই এবার থেকে সকালে চা খাওয়ার সময় সামান্য লেবুর রস যোগ করুন।

প্রোটিনের বিভিন্ন উৎস

প্রোটিন হজম করা সবচেয়ে কঠিন। এজন্য লোকদের দুটি ভিন্ন ধরণের প্রোটিন গ্রহণ করা উচিত নয়। কারণ এর পুরো প্রক্রিয়াটি দীর্ঘায়িত করে আপনার সিস্টেমে একটি ভারী ক্ষতি গ্রহণ করে। দুটি ভিন্ন ধরণের প্রোটিন মিশিয়ে দেহের আরও বেশি শক্তি প্রয়োজন।

মাংস ও দুধ

এই খাবার দুটি একসঙ্গে না খাওয়ার কথা অনেকে জানলেও সবসময় তা মেনে চলা হয় না। মাংসে প্রচুর প্রোটিন থাকে। এদিকে দুধও সুষম আহার। তাই এই দুই খাবার পরপর খেলে শরীরে তাৎক্ষণিক সময়ের জন্য প্রোটিনের পরিমাণ বেড়ে যায়। একাধিক পুষ্টি উপাদানের মধ্যে বিশেষ কোনো ধরনের উপাদানের মাত্রাতিরিক্ত উপস্থিতি শরীরের জন্য ভালো নয়।

ফল এবং দই

আপনিও অবশ্যই সুস্থ থাকার জন্য অনেক সময় ফলের সঙ্গে দই খান। তবে, কোনও টক ফল দইয়ের সঙ্গে ভালো সংমিশ্রণ তৈরি করে না। বলা যায় যে, ফল এবং দইয়ের সংমিশ্রণ স্বাস্থ্যকর জীবনযাপনের জন্য আরও ভালো বিকল্প হিসাবে বিখ্যাত হয়ে উঠেছে। তবে, এটি আসলে টক্সিন তৈরি করে এমনকি এটি খেলে যে কারও কাছে অ্যালার্জি হতে পারে।

তরমুজ ও পানি

তরমুজে প্রচুর পরিমাণ পানি থাকে। তাই তরমুজের পরে পানি পান করলে শরীরে পানির পরিমাণ বেড়ে যায়। ইউরিক অ্যাসিড, হজম সমস্যা বা গ্যাস্ট্রিকে ভুগলে পানির এই মাত্রাতিরিক্ত উপস্থিতি শরীরের বেশি ক্ষতি করে।

ঠান্ডা পানীয় ও পুদিনা

শরীরের ভিতর এই দুটি খাবার তীব্র রাসায়নিক বিক্রিয়া ঘটায়। এতে হজমের গোলমালতো বটেই, বিক্রিয়ায় ফলে সায়ানাইডও উৎপন্ন হতে পারে। তাই এই দুটি খাবার একেবারেই একসঙ্গে খাবেন না।

দুধ ও অ্যান্টিবায়োটিক

কয়েকটি অ্যান্টিবায়োটিক আছে যা শরীরে লোহা ও ক্যালসিয়ামের মতো খনিজের শোষণকে প্রতিরোধ করে। তাই অ্যান্টিবায়োটিক চলাকালীন চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নিন ওই ওষুধ চলাকালীন দুধ খাওয়ায় বিধিনিষেধ আছে কি না।

দুধ ও লেবু

দুধ ও লেবু একসঙ্গে মেশালে দুধ কেটে যায়। পেটের ভিতরেও একই রকম হয়। অনেকে ভাবেন পেটে পাচক রসে লেবুর তুলনায় অনেক বেশি অ্যাসিডের ভাগ থাকে। কিন্তু মনে রাখবেন, শরীর সেসব রসের সাহায্যে পরিপাকক্রিয়ায় অংশ নিতে অভ্যস্ত। বাইরে থেকে অতিরিক্ত অ্যাসিড যোগ হলে এই পদ্ধতি বাধাপ্রাপ্ত হয়।

চা ও দই

এই দুই প্রকার খাবারেই অম্ল রয়েছে। একসঙ্গে বা সামান্য বিরতি দিয়ে পরপর এই ধরনের খাবার খাওয়া মানে পাকস্থলীতে অ্যাসিডের মাত্রা বেড়ে যাওয়া। এতে শরীরে হজমজনিত সমস্যা দেখা দেয়। অম্লতার অসুখ আগে থেকে থাকলে আরও বেশি সতর্ক থাকা প্রয়োজন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here