রেহানা মরিয়ম নূর’ ট্রেলারে চোখে পড়া ৫

0
44

খবর৭১ঃ
কান চলচ্চিত্র উৎসবের অফিসিয়াল সিলেকশনে স্থান পেয়ে বাংলাদেশের হয়ে ইতিহাস গড়া ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ ছবির বহুল প্রতীক্ষিত ট্রেলার প্রধান চরিত্রের একরোখা ও প্রতিবাদী মনোভাব বুঝিয়ে দিয়েছে ভালোভাবে। ১ মিনিট ৪০ সেকেন্ডের ভিডিওটি একজন সাহসিনীর দৃঢ়তায় পূর্ণ।

শিক্ষক, চিকিৎসক, বোন, কন্যা ও মা হিসেবে বেসরকারি মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক রেহানা মরিয়ম নূরের জটিল জীবনযাপনের ঝড়ো হাওয়া অনুভব করা যায় ট্রেলারে। আজমেরী হক বাঁধন এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

ট্রেলারটির পাঁচ উল্লেখযোগ্য দিক:

গল্পের রঙ নীল

আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের প্রথম ছবি ‘লাইভ ফ্রম ঢাকা’ ২০১৬ সালে সিঙ্গাপুর আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা পরিচালক ও সেরা অভিনেতা শাখায় পুরস্কার জেতে। এরপর এটি প্রদর্শিত হয় নেদারল্যান্ডসের রটারডাম ও সুইজারল্যান্ডের লোকার্নোর মতো কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ উৎসবে। আগের ছবিটি পুরোপুরি সাদাকালো রঙে সাজিয়েছিলেন তিনি। সাদ এবার প্রতিটি ফ্রেমে রেখেছেন আবছা নীল রঙের আবহ। বেদনা বয়ে বেড়ানো রেহানা মরিয়ম নূরের কাঁধে নীল রঙের ব্যাগ ধরিয়ে দিয়ে নির্মাতা বুঝিয়েছেন, কেনো তার গল্পের রঙ নীল।

মেকআপ ছাড়া বাঁধন

‘লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার’ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বিনোদন অঙ্গনে পা রেখেছিলেন আজমেরী হক বাঁধন। কিন্তু ট্রেলারে তার চোখেমুখে জমকালো সাজগোজ নেই। ন্যায়বিচারের জন্য একজন নারীর লড়াই ফুটিয়ে তুলতে নিজেকে আমূল বদলে ফেলেছেন তিনি।

রেহানা মরিয়ম নূরের হিজাব

রেহানা মরিয়ম নূর নামটা শুনলেই পর্দানসীন কারও কথা মাথায় আসে! তাই তাকে সারাক্ষণ হিজাব পরিয়েছেন নির্মাতা। কেবল দুটি দৃশ্যে তার মাথার চুল দেখা গেছে। এর একটি ওয়াশরুমে, অন্যটি নারী শিক্ষার্থীর শোবার কক্ষে চিত্রায়িত। অন্য মেয়েকে যৌন হেনস্তার শিকার হতে দেখে মানতে না পারা একজন নারীকে জনসমক্ষে পর্দানসীন রেখে চরিত্রটি প্রতিষ্ঠিত করেছেন নির্মাতা।

একটি লোকেশন

মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় নির্ভর নারীকেন্দ্রিক গল্প নিয়ে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ বানিয়েছেন সাদ। তাই একটি লোকেশনেই এর দৃশ্যধারণ হয়েছে। তবে সাদের নির্মাণশৈলী, চিত্রগ্রাহক তুহিন তমিজুলের পরিশ্রম ও মুন্সিয়ানা এবং দুর্দান্ত আবহসংগীতের সম্মিলনে লোকেশনের বেলায় একঘেঁয়েমি লাগে না।

কার্নিভালের আবহসংগীত

ট্রেলারের শুরু থেকে শেষ অবধি দর্শককে রেহানা মরিয়ম নূরের জটিল জীবনের সঙ্গে সম্পৃক্ত করেছে আবহসংগীত। এটি তৈরি করেছে কার্নিভাল ব্যান্ড। কোনো ব্যান্ডকে দিয়ে গানের বাইরে চলচ্চিত্রের আবহসংগীত করানোর ঘটনা দেশে বিরল।

আগামী ৭ জুলাই কান চলচ্চিত্র উৎসবের আঁ সার্তে রিগা বিভাগে আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ ছবির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হতে যাচ্ছে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসের সবচেয়ে বড় গৌরব এটাই।

বাংলাদেশের মেট্রো ভিডিওর সঙ্গে যৌথভাবে ছবিটি প্রযোজনা করেছেন সিঙ্গাপুরের পোটোকল থেকে জেরেমি চুয়া। তিনি কানে নতুন কেউ নন। তার প্রযোজিত ‘অ্যা ইয়েলো বার্ড’ ২০১৬ সালে কানের প্যারালাল বিভাগ ইন্টারন্যাশনাল ক্রিটিক’স উইকে নির্বাচিত হয়।

বুসান এশিয়ান সিনেমা ফান্ড এবং দোহা ফিল্ম ইনস্টিটিউটের পোস্ট প্রোডাকশন গ্র্যান্টের সহায়তায় তৈরি হয়েছে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’। আন্তর্জাতিক পরিবেশনা ছাড়াও কান মার্কেটে ছবিটিকে প্রতিনিধিত্ব করবে জার্মানির বার্লিনের ফিল্মস বুটিক

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here