চার বছর পর কাতারে রাষ্ট্রদূত পাঠাল সৌদি

0
18

খবর৭১ঃ

প্রায় চার বছর কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন রাখার পর কাতারে নিজেদের রাষ্ট্রদূত ফেরত পাঠিয়েছে সৌদি আরব।

সোমবার দোহায় নিযুক্ত সৌদি রাষ্ট্রদূত মানসুর বিন খালেদ বিন ফারহান আল সৌদ কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ বিন আব্দুর রহমান আল সানির কাছে নিজের পরিচয়পত্র পেশ করেন।

এ সময় কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সৌদি রাষ্ট্রদূতের পেশাগত সাফল্য কামনা করেন। তিনি দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক শক্তিশালী করার ক্ষেত্রে দোহার পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

মানসুর বিন খালেদ বিন ফারহান আল সৌদ এর আগে ২০১২ সালে স্পেনে সৌদি আরবের বিশেষ দূতের দায়িত্ব পালন করেছেন।

গত ৫ জানুয়ারি সৌদি আরবে উপসাগরীয় দেশগুলোর এক শীর্ষ সম্মেলনে কাতারের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ কূটনৈতিক সমঝোতা হয় সৌদি আরব, মিসর, আরব আমিরাত ও বাহরাইনের।

এর পরই সৌদি আরবের আকাশপথ, জল ও স্থলসীমান্ত কাতারের জন্য খুলে দেওয়া হয়।

২০১৭ সালের মাঝামাঝি সময়ে সন্ত্রাসে মদদের অভিযোগ এনে কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক, বাণিজ্য সম্পর্ক ছিন্ন করাসহ ভ্রমণও বন্ধ করেছিল সৌদি আরবসহ বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিসর। তবে সন্ত্রাসের অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছে কাতার।

ওই সময় অবরোধ প্রত্যাহারের জন্য ১৩টি শর্ত জুড়ে দেওয়া হল কাতারের সামনে। তুরস্ক এবং ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করা, কাতার থেকে তুরস্কের সামরিক ঘাঁটি তুলে নেওয়া এবং আলজাজিরা টেলিভিশন বন্ধ করা ছিল তাদের মধ্যে অন্যতম।

তবে সৌদি জোটের দাবি প্রত্যাখ্যান করে উল্টো তুরস্কের দিকে আরও বেশি ঝুঁকে পড়ে কাতার। তুরস্কও কাতারের সমর্থনে এগিয়ে আসে।

সৌদি আরবসহ চার দেশ, অন্যদিকে কাতার, এ দু’তরফের ঝগড়ায় মধ্যস্থতার ভূমিকা নেয় কুয়েত। ডিসেম্বরে কুয়েতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে।

২০২১ সালের শুরুর দিকে অবরোধ প্রত্যাহার করে কাতারের সঙ্গে দ্বন্দ্ব মেটানোর চুক্তি করে সৌদি আরবসহ উপসাগরীয় দেশগুলো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here