প্রথমবারের মতো চিত্রিত হলো ব্ল্যাক হোলের ছবি

0
21

খবর৭১ঃ

ইভেন্ট হরাইজন টেলিস্কোপ (ইএইচটি)’র সহযোগিতায় তৈরি ছবি- বিবিসি

আমাদের এই মহাবিশ্বের ছায়াপথের কেন্দ্র থাকা রহস্যময় দৈত্যাকার কৃষ্ণ গহ্বরের আলোকচিত্র প্রথমবারের মতো ধারণ করলো জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা।

ধনু ক* নামে পরিচিত এই বস্তুটি আমাদের সূর্যের ভরের থেকে চল্লিশ লক্ষ গুণ বেশি।

ছবিতে একটি কেন্দ্রীয় অন্ধকার অঞ্চল যেখানে গহ্বরটি অবস্থিত। এটি প্রচণ্ড মহাকর্ষীয় ত্বরান্বিত শক্তিতে সুপার-হিটেড গ্যাস থেকে আসা আলোর মাধ্যমে প্রদক্ষিণ করে।

ভারসাম্য রক্ষার্থে বলয়টির আকার আমাদের নক্ষত্রের চারপাশে বুধের কক্ষপথের আকারের মতো। এটি প্রায় ৬০ মিলিয়ন কি.মি বা ৪০ মিলিয়ন মাইল জুড়ে বিস্তৃত।

সৌভাগ্যবশত এই দৈত্যকার বস্তুটি আমাদের সৌরজগৎ থেকে প্রায় ২৬ হাজার আলোকবর্ষ দূরে অবস্থান করায় এর থেকে কোনো রকমের বিপদ আসার সম্ভাবনা নেই।

ইভেন্ট হরাইজন টেলিস্কোপ (ইএইচটি) সহযোগিতা নামে একটি আন্তর্জাতিক দল ছবিটি ধারণ করেছে।

২০১৯ সালে মেসিয়ার ৮৭, বা এম৮৭ নামক আরেকটি গ্যালাক্সির কেন্দ্রে বিশালাকার ব্ল্যাক হোলের একটি ছবি প্রকাশের পর এটি তাদের এই ধরনের দ্বিতীয় ছবি। সেই বস্তুটি আমাদের সূর্যের ভরের ৬.৫ বিলিয়ন গুণে এক হাজার গুণেরও বেশি বড় ছিল।

ইএইচটি প্রকল্পের সঙ্গে জড়িত ইউরোপীয় অগ্রগামীদের একজন, অধ্যাপক হেইনো ফাল্কে বলেছেন, এই নতুন চিত্রটি বিশেষ। কারণ এটি আমাদের সুপারম্যাসিভ ব্ল্যাক হোল।

র‌্যাডবউড ইউনিভার্সিটির জার্মান-ডাচ বিজ্ঞানী নিজমেগেনের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, এটি আমাদের বাড়ির উঠোনে। আপনি যদি ব্ল্যাক হোল কী এবং তারা কীভাবে কাজ করে তা বুঝতে চান তবে এটিই আপনাকে বলবে। কারণ আমরা এটিকে বিশদভাবে দেখতে পাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here