তৃতীয় ডোজে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার উচ্চ ঝুঁকির সম্ভাবনা আছে: সিডিসি

0
25

খবর৭১ঃ
করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন প্রাপ্তদের তৃতীয় একটি বুস্টার ডোজ দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন অনেক বিষেশজ্ঞ। তাদের মতে, এতে ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা বৃদ্ধি পায়। কিন্তু তৃতীয় ডোজে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার উচ্চ ঝুঁকি আছে বলে জানিয়েছে মার্কিন রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরক্ষা কর্তৃপক্ষ-সিডিসি। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

এক সাক্ষাৎকারে সিডিসি কর্মকর্তারা জানান, ভ্যাকসিন প্রাপ্তদের তৃতীয় ডোজ দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা আছে কি নেই সে সম্পর্কে তাদের আরও তথ্যের প্রয়োজন। তবে এতে রয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার উচ্চ ঝুঁকি।

সিডিসির উপ-পরিচালক জে বাটলার জানান, তৃতীয় ডোজ বড় বিপদের কারণ হতে পারে। কারণ মডার্না ও ফাইজারের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার পরে অনেকের দেহেই বেশ কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করেছি আমরা। তাই তৃতীয় ডোজ নেওয়ার পর কি হয় তা জানতে আমরা উদগ্রীব হয়ে আছি। তবে আমার ধারণা এতে রয়েছে উচ্চ ঝুঁকি। বিশেষ করে যাদের দেহে বিরল রোগ আছে তারা খুব ভুগবে।

সম্প্রতি ফাইজার এক বিবৃতিতে জানায়, তারা মানুষকে তৃতীয় জোড দেওয়ার পরিকল্পনা করছে। কারণ, ভ্যাকসিন গ্রহণের ৬ মাসের মাথায় পুনরায় সংক্রমণের ঝুঁকি রয়েছে। এ সম্পর্কিত তথ্যও রয়েছে তাদের কাছে। বিশেষ করে করোনার ডেল্টা ধরণ বেশি সংক্রমক। যার কারণে ভ্যাকসিনের তৃতীয় ডোজ সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে বেশি কার্যকর হবে।

ফাইজারের এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছে যুক্তরাষ্টের স্বাস্থ্য ও জনসেবা অধিদফতর। তারা এই মুহুর্তে ফাইজারের তৃতীয় ডোজ প্রয়োগ করার কোনো প্রয়োজন মনে করছে না।

একই কথা বলছে সিডিসি। মঙ্গলবার তারা জানায়, ডিসেম্বর থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত যেসব মার্কিন নাগরিক ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন তাদের দেহে এখনো রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী পর্যায়ে আছে। ডেল্টায় সংক্রমিত হয়েছে খুব কম। এ বিষয়ে খুব শিগগির তাদের কাছে তথ্য চলে আসবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here