কোটি টাকার ব্যবসার টার্গেট সৈয়দপুরে নির্বাচনী কাজে কর্মমুখর প্রেস পাড়া, দাম বৃদ্ধি কাগজের

0
71
কোটি টাকার ব্যবসার টার্গেট সৈয়দপুরে নির্বাচনী কাজে কর্মমুখর প্রেস পাড়া, দাম বৃদ্ধি কাগজের

মিজানুর রহমান মিলন, সৈয়দপুর প্রতিনিধিঃ সৈয়দপুর পৌরসভার নির্বাচন আগামী ১৬ জানুয়ারি। এ নির্বাচন প্রার্থীদের প্রতিক বরাদ্দের পরেই শুরু হয়েছে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা। হাতে সময় বেশি না থাকায় দিন যতই যাচ্ছে প্রার্থীদের প্রচারণা ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে নির্বাচনকে সামনে রেখে শহরের প্রেস পাড়ায় ব্যস্ততা বেড়েছে অনেক।

দিন-রাত চলছে প্রার্থীদের নির্বাচনী পোস্টার ও লিফলেট ছাপার কাজ। কোটি টাকার ব্যবসার পরিকল্পনা নিয়ে যাবতীয় মূদ্রণ কাজের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে প্রেস মালিকরা। সব প্রেসে নির্বাচনী স্টিকার, ফেস্টুন, ডিজিটাল ব্যানার ও নির্বাচনী ইস্তেহার ছাপার কাজ চলছে জোরেশোরে। প্রেস মালিকদের সূত্র জানায়, চলমান করোনাকালে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানাদি সীমিত হয়ে যাওয়া এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ছাপাখানার ব্যবসায় চরম মন্দা চলছিল। তবে স্থানীয় সরকার নির্বাচন শুরু হওয়ায় সৈয়দপুরের প্রেস মালিকদের ব্যবসায় গতি ফিরেছে।

ব্যবসা ধরতে ছাপাখানার মালিকরা কাগজ, কালি, প্লেট ও কেমিক্যালসহ মুদ্রণ উপকরণ আগাম মজুদ রেখেছেন। ফলে প্রতিক বরাদ্দের পর মুদ্রণ কাজে ছাপাখানাগুলো কর্মমুখর হয়ে উঠেছে। শহরের প্রেসপাড়া শহীদ ডা. জিকরুল হক সড়কসহ শহরে ছোট-বড় অর্ধশত প্রেস এখন ব্যস্ত সময় পার করছে মুদ্রণ কাজ নিয়ে। এদিকে নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশের ছোট বড় পেপার মিল ও ঢাকার বড় বড় কাগজ ব্যবসায়ীরা কাগজের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। বিশেষ করে নির্বাচনী পোস্টার ও লিফলেট মূদ্রণে ব্যবহৃত সব ধরণের কাগজের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে সর্বাধিক। পাইকারী কাগজ বাজারে ৫৫ গ্রামের কাগজ প্রতি রীম ১২০০ টাকা থেকে বেড়ে ১৪০০ টাকায়। বর্তমানে ৬৫ গ্রাম কাগজ প্রতি রীম ১৪০০ টাকা থেকে বেড়ে ১৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বাড়তি মুনাফা লুটতে পেপার মিল ও বড় বড় কাগজ ব্যবসায়ীরা এর সুযোগ নিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন প্রেস ও স্থানীয় কাগজ ব্যবসায়ীরা। সৈয়দপুর একতা অফসেট প্রেসের মালিক রেজাউল করিম রিপন জানান, করোনাকালে প্রেস ব্যবসায় চরম মন্দা বিরাজ করছে। তবে স্থানীয় সরকারের পৌর নির্বাচন শুরু হওয়ায় প্রেস ব্যবসায় মন্দা কাটতে শুরু করেছে। প্রেসগুলো নির্বাচনী পোস্টার, লিফলেট, স্টিকার ও ডিজাইন কাজ নিয়ে এখন ব্যস্ত। ছাপার অর্ডার নেয়ার সঙ্গে ডেলিভারীর কাজও চলছে সমানতালে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কাগজ ও মুদ্রণ উপকরণের মূল্য কিছুটা বৃদ্ধি পাওয়ায় তাদের মুনাফা কমে গেছে। তাই লাভ কম হলেও বেশী বেশী ছাপার অর্ডার নিয়ে পুষিয়ে নেয়ার চেষ্টা চলছে।

মদিনা প্রিন্টিং প্রেসের মালিক মো. মাহবুব বলেন, প্রতিক বরাদ্দের দিন থেকে শহরের সব প্রেসে পোস্টার লিফলেট ছাপানোর কাজ পুরোদমে চলছে। সবার আশা নির্বাচনের কারণে ব্যবসা ভালো হবে। তবে এ ব্যবসায় প্রতিযোগিতা থাকায় সামান্য লাভে কাজ করতে হচ্ছে। করোনাকালে ধাক্কায় প্রেস ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে প্রতিযোগিতার চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ আমরা করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here