বাহুবলে ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে যুবকের মৃত্যু

0
11

মঈনুল হাসান রতন হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার মির্জাটুলা নামকস্থানে ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে রফিকুল ইসলাম সেফুল (২৮) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি মানসিক রোগী ছিলেন বলে পরিবার দাবী করেছে।শুক্রবার (১৭ মে) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা-সিলেট রেলপথের উপজেলার মির্জাটুল রেললাইন থেকে লাশটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। এর আগে রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে রাতের কোনো ট্রেনে নিচে কাটা পড়ে এ ঘটনাটি ঘটেছে।নিহত রফিকুল ইসলাম উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের মির্জাটুলা গ্রামের আব্দুল হান্নানের পুত্র।নিহতের পরিবার সূত্র জানায়- রফিকুল ইসলাম গত এক বছর যাবত মানসিক রোগী হিসেবে যেখানে সেখানে ঘুরে বেড়াতেন।শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম খান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন- ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এব্যাপারে শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে থানায় অপমৃত্যুদায়ে মামলা করা হয়েছে।
হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে বসতবাড়ির রাস্তা নিয়ে শ্বাশুরী-জামাতাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত
মঈনুল হাসান রতন হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ চুনারুঘাট উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের আলীনগর গ্রামের মৃত আ: বারিকের পুত্র আকল মিয়া (৪৫) ও শ্বাশুরী মৃত হাজী আ: গফুরের স্ত্রী জবেদা খাতুন (৫০) দ্বয়কে বসতবাড়ির রাস্তা নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন। জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের আলীনগর রানীগাইয়া বাড়ির আকল মিয়ার বসতবাড়ির পূর্ব দিকে রাস্তায় এ ঘটনাটি ঘটে। আহতদের আত্মচিৎকারে স্থানীয় আশপাশের এলাকাবাসীরা এগিয়ে এসে তাদেরকে উদ্ধার করে গুরুতর আশংকাজনক অবস্থায় চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আকল মিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখে তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এদিকে তার শ্বাশুরী বিধবা জবেদা খাতুনকে চুনারুঘাট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত আকল মিয়া জানান, দীর্ঘদিন যাবত ধরে জমি সংক্রান্ত ও রাস্তা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল একই গ্রামের আ: মজিদের পুত্র হিরা মিয়ার সাথে। এরই জের ধরে হিরা মিয়া তার দলবল নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে আকল মিয়ার বসতবাড়ির পূর্ব দিকে জোর পূর্বক রাস্তা বেঁধে নেওয়ার চেষ্টা চালালে এসময় আকল মিয়ার শ্বাশুরী জবেদা খাতুন প্রতিবাদ করিলে একই গ্রামের হিরা মিয়া (৫০), আ: আলী (৪৫), আফরোজ মিয়া (২০), শাহিদ মিয়া (২৪), আ: হক (৩৫), ময়না মিয়া (২৪) উত্তেজিত হয়ে হিরা মিয়া তার হাতে থাকা ধারালো অস্ত্র দা দিযে আকল মিয়ার মাথায় উপর্যুপরি কুপিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে এবং হিরা মিয়ার লোকজনরা বেধড়ক পিটিয়ে শ্বাশুরী জবেদা খাতুনের ডান হাত ভেঙ্গে দেয়। স্থানীয়রা চুনারুঘাট থানায় সংবাদ দিলে চুনারুঘাট থানার ওসি কে.এম আজমিরুজ্জামানের নির্দেশে তাৎক্ষণিকভাবে থানার এস.আই মো: মহিন উদ্দিন সহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং গ্রেফতারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানান। এ ব্যাপারে আকল মিয়ার বড় ভাই চুনারুঘাট থানায় বাদী হয়ে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে আহত সূত্রে জানা যায়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here