বড় লিড নিয়ে থামল বাংলাদেশ

0
136

খবর ৭১: শুরুর বিপর্যয় ঠেলে অভিজ্ঞ ব্যাটে মুন্সিয়ানা দেখালেন সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম। শেষ দিকে ঝলমলে এক ইনিংস খেললেন মেহেদী হাসান মিরাজও। আইরিশদের করা ২১৪ রানের বিপরীতে মুশফিকের সেঞ্চুরি ও সাকিব-মিরাজের ফিফটির্ধ্বো ইনিংসের পর সবকটি উইকেট হারিয়ে দলীয় ৩৬৯ রানে থামে বাংলাদেশের ইনিংস। তবে তার আগে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে স্বাগতিকদের লিড বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫৫ রান।

মুশফিক-সাকিবদের ব্যাটে দাপটের দিনে বল হাতে আলো কাড়লেন আইরিশ বোলার অ্যান্ড্রি ম্যাকব্রিন। এদিন একাই ৬ উইকেট নিয়েছেন এই অফ স্পিনার

আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম দিন শেষে ৩৪ রানে ২ উইকেট হারিয়ে অস্বস্তিতে ছিল বাংলাদেশ। সেখান থেকে দ্বিতীয় দিনে আজ (বুধবার) বাংলাদেশকে টেনে তোলার ভার ছিল মুমিনুল হক ও মুশফিকের কাঁধে। কিন্তু আগের দিনের চেয়ে মাত্র ৬ রান যোগ করতেই বোল্ড হয়ে ফেরেন মুমিনুল। অ্যাডায়ারের করা লেগ স্টাম্প সোজাসুজি বল তিনি স্কয়ারে খেলতে যান। কিন্তু সামনে এগিয়ে এসেও মুমিনুলের ব্যাট বলের ছোঁয়া পায়নি। উল্টো প্যাডে ঘষা খেয়ে বল সোজা লেগ-স্টাম্পে আঘাত হানে।

অবশ্য সেই চাপে স্বাগতিকদের ভেঙে পড়তে দেননি সাকিব ও মুশফিক। দুজনেই মিলে গড়েন ১৫৯ রানের অনবদ্য এক জুটি। অবশ্য সেঞ্চুরির আক্ষেপ নিয়ে ফিরতে হয়েছে সাকিবকে। সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১৩ রান দূরে থাকতে অফ-স্টাম্পের অনেক বাইরের বল টেনে লেগে খেলতে গিয়ে উইকেটরক্ষকের তালুবন্দী হয়েছেন তিনি। এর আগে সাদা পোশাকে সর্বশেষ সেঞ্চুরি করেছিলেন ২০১৭ সালের ১৪ মার্চ। দীর্ঘ ৬ বছরের সেঞ্চুরিখরা তার আজও কাটানো হলো না।

এর আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কলম্বোতে পঞ্চম সেঞ্চুরি করেছিলেন এই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। এরপর তার ষষ্ঠ সেঞ্চুরির অপেক্ষা যেন ফুরাচ্ছেই না! এদিন মিরপুর শেরে-ই বাংলা স্টেডিয়ামে যেভাবে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মকভাবে সাকিব খেলছিলেন, মনে হয়েছিল তার সেই অপেক্ষার বুঝি অবসান হতে যাচ্ছে। কিন্তু অতি-আক্রমণাত্মক মনোভাবই কাল হলো তার!

অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইনের স্ট্যাম্পের বাইরের বলে মারতে গিয়ে ৮৭ রানে সাকিব উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েছেন। এর আগে মাত্র ৪৫ বলে সাদা পোশাকে নিজের ৩১তম ফিফটি তুলে নেন সাকিব। ফিফটি পূর্ণ করতে তিনি পরপর দুটি চারের বাউন্ডারি খেলেছিলেন। পরবর্তীতে ১১১ বলে ৮৭ রান করতে সাকিব হাঁকিয়েছেন ১৪টি চার।

সাকিব আক্ষেপ নিয়ে ফিরলেও দিনটা রাঙালেন মুশফিক। মার্ক অ্যাডায়ারের বল পেছনে কাটব্যাক করেই চারের বাউন্ডারি। আর এর মাধ্যমে পূর্ণ করলেন সাদা পোশাকে নিজের দশম সেঞ্চুরি। তবে তেমন উদযাপন করতে দেখা যায়নি। দুই হাত উঁচু করে সাদামাটা উচ্ছ্বাস, যেন তেমন কিছুই হয়নি। টেস্টে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ রান করা এই ব্যাটার দিনের শুরু থেকেই ব্যাটে বেশ দৃঢ়তা দেখিয়েছেন। তার প্রতিদানও পেলেন ঠিকঠাক। দশম সেঞ্চুরির দেখা পেতে তিনি খেলেছেন ১৩৫ বল।

এর আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২০২২ সালের ১৫ মে নবম সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছিলেন মিস্টার ডিফেন্ডেবল। মিরপুরে অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচে তিনি করেছিলেন হার না ১৭৫ রান। দশম সেঞ্চুরি পেতে তাকে এক বছর অপেক্ষা করতে হয়েছে। তবে এর মধ্যে টাইগারদের খুব বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলার সুযোগ হয়নি। অবশ্য দুর্দান্ত খেলতে থাকা মুশফিকও থেমেছেন ব্যক্তিগত ১২৬ রানে। অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইনকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে তিনি কামিন্সে তালুবন্দী হন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

আয়ারল্যান্ড ১ম ইনিংস: ২১৪

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: (আগের দিন ৩৪/২) ৮০.৩ ওভারে ৩৬৯ (মুমিনুল ১৭, মুশফিক ১২৬, সাকিব ৮৭, লিটন ৪৩, মিরাজ ৫৫, তাইজুল ৪, শরিফুল ৪, এবাদত ০, খালেদ ৪*; অ্যাডায়ার ১৭-২-৬৪-২, হিউম ১১-২-৩৭-০, ম্যাকব্রাইন ২৮-২-১১৮-৬, ক্যাম্পার ৮-১-৫৪-০, হোয়াইট ১৩.৩-০-৭১-২, টেক্টর ৩-০-২১-০)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here