দাম্পত্য সম্পর্ক যেভাবে হার্ট সুস্থ রাখে

0
33

খবর৭১ঃ

হার্টের অসুখের মূলে জীবনযাপনে অনিয়ম, দুশ্চিন্তা-অবসাদ থেকে রক্তচাপ কমবেশি হওয়া, নেশাজাতীয় দ্রব্য সেবন ও পান। দাম্পত্য জীবনে যারা সুখী নয়, তাদের অবসাদ গ্রাস করে কখনো কখনো মাদকের দিকেও ধাবিত করে।

২০১০ সালে আমেরিকান জার্নাল অব কার্ডিওলজিতে প্রকাশিত এক গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব পুরুষ সপ্তাহে অন্তত দুবার যৌনমিলন করে, তাদের হৃদরোগের ঝুঁকি; যারা মাসে একবার যৌনমিলন করে তাদের অপেক্ষা অনেক কম। ২০১২ সালে প্রকাশিত আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের এক প্রবন্ধে জানা যায় যে, স্বামী-স্ত্রীর দাম্পত্য সম্পর্কের সঙ্গে হার্টঅ্যাটাকের শতকরা ১ ভাগেরও কম সম্পর্ক বিদ্যমান ও শারীরিক মেলামেশা হৃদরোগীদের জন্য নিরাপদ।

ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিক হাসপাতালের ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজির পরিচালক ডা. দীন নুকতার মতে, সুস্থ হৃদযন্ত্র ও বৈধ যৌনকর্ম উভয় উভয়ের জন্য উপকারী, দরকার ও ভালো। সুখী দাম্পত্য সম্পর্ক যেমন হৃদযন্ত্র ভালো রাখে এবং হার্টঅ্যাটাকের ঝুঁকিও কমায়, তেমনি সুস্থ হৃদযন্ত্র যৌনকর্মের মাত্রা ও পরিমাণ বাড়ায়।

এ বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন মেডিনোভা মেডিকেলের মেডিসিন ও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. তৌফিকুর রহমান ফারুক।

স্বামী-স্ত্রীর মেলামেশা একটি ভালো অ্যারোবিক ব্যায়াম, যা হৃদযন্ত্র ভালো রাখে। আমেরিকান কলেজ অব স্পোর্টসের মতে, অ্যারোবিক ব্যায়াম হলো, যে ব্যায়াম শরীরের বড় বড় মাংশপেশিগুলো ব্যবহার করা হয় নিয়মিত ও ছন্দাকারে।

অ্যারোবিক ব্যায়াম ওজন কমায়। ফলে ডায়াবেটিস কমায় বা প্রতিরোধ করে ও হার্টঅ্যাটাকের ঝুঁকি কমায়। যেহেতু মেলামেশা একটি অ্যারোবিক ব্যায়ামের মতো, তাই পরিমিত দাম্পত্য সম্পর্ক উচ্চরক্তচাপ কমায়, বিশেষত মেয়েদের ক্ষেত্রে রক্তচাপ বেশি কমায়।

নারীদের অর্গাজমে অক্সিটোসিন নামক হরমোন বের হয়, যা শরীরের রক্ত নালি প্রসারিত করে। ফলে সরাসরি রক্তচাপ কমে। যৌনকর্ম মানসিক প্রশান্তি আনে, মানসিক দুশ্চিন্তা ও অস্থিরতা দূর করে এবং মানসিক চাপ কমায়।

স্ট্রেস হরমোন আমাদের হৃদস্পন্দন বাড়ায়, রক্তনালি সংকুচিত করে; ফলে রক্তচাপ বাড়ায় ও হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ায়।

দাম্পত্য সম্পর্ক স্ট্রেস হরমোন কমায়, মানসিক প্রশান্তি দেয়, হৃদস্পন্দন স্বাভাবিক রাখে এবং রক্তচাপ কমায় বা স্বাভাবিক রাখে ও হার্টঅ্যাটাকের ঝুঁকি কমায়।

তাই পরিমিত ও নিয়মিত শারীরিক মেলামেশা মানসিক চাপ, বিষণ্ণতা, অবসাদগ্রস্ততা, দুশ্চিন্তা ও একাকিত্ব দূর করে মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখে।

সুস্থ হৃদযন্ত্র ও সুস্থ যৌনকর্মের জন্য সুস্থ জীবনযাত্রা জরুরি। এ কারণে ধূমপান ত্যাগ করতে হবে, নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে, মদ ও অ্যালকোহল বর্জন করতে হবে, মানসিক চাপ কমাতে হবে এবং পরিমিত ঘুমাতে হবে।

যৌনকর্মের এই সুফলতা বেশি দরকার বয়স্ক মানুষের জন্য। কারণ বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যৌন সম্পর্ক দক্ষতার চেয়েও সম্পর্কের গভীরতা বেশি দেখা যায়।
তাই স্বাভাবিক ও বৈধ সম্পর্কে বয়স্ক মানুষরাও পরিমিত যৌনকর্মের ফলে তাদের শরীরে রক্ত সরবরাহ স্বাভাবিক থাকে, শরীরে ভালো লাগার অনুভূতি তৈরি হয়, মানসিক দুশ্চিন্তা, অবসাদগ্রস্ততা ও চাপ কমে।

তাই গবেষণালব্ধ তথ্য-উপাত্ত থেকে ডা. নুকতা সাবধান করেন যে, এ মানসিক প্রশান্তি ও চাপ কমানোর জন্য শারীরিক সম্পর্ক ভুল জায়গায় করলে হবে না, যার সঙ্গে সুদৃঢ় মানসিক ও শারীরিক সম্পর্ক বিদ্যমান, তার সঙ্গে দাম্পত্য সম্পর্কের এ সুবিধা পাওয়া যাবে, অনিরাপদ ও অবৈধ মেলামেশায় এসব সুবিধাদি পাওয়া যাবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here