সৈয়দপুরে ঋণের চাপে উধাও হওয়া এক পরিবার পাঁচ সদস্য ১৭ দিন পর বাড়িতে ফিরেছেন

0
42

মিজানুর রহমান মিলন,সৈয়দপুর :
নীলফামারীর সৈয়দপুরে ঋণ পরিশোধে পাওনাদার ও ব্যাংকের চাপে উধাও হওয়া সেই তিন পরিবারের মধ্যে এক পরিবার ১৭ দিন পর তাদের বাড়িতে ফিরে এসেছেন। গত বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ওই পরিবারের শিশুসহ পাঁচ সদস্য বাড়িতে ফিরে আসেন। ওইদিন প্রথমে তারা উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে গেলে সংশ্লিষ্ট ইউপি’র চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান জুন ইউনিয়নের ওয়ার্ড সদস্য ময়নুল ইসলামের মাধ্যমে তাদেরকে নিজ বাড়িতে পৌঁছে দেন। উধাও হওয়া পরিবারের ফিরে আসা সদস্যরা হলেন , গৃহকর্তা কমল চন্দ্র সূত্রধরের স্ত্রী ভারতী রাণী সূত্রধর (৪২), তাঁর দুই পুত্র গোপাল চন্দ্র সূত্রধর (২৫) ও খোকন চন্দ্র সূত্রধর (২১), পুত্রবধূ শ্যামলী রাণী সূত্রধর (২২) এবং নাতি সাগর চন্দ্র সূত্রধর (৫)। তবে পরিবারটির গৃহকর্তা হোটেল শ্রমিক কমল চন্দ্র সূত্রধরের কোন হদিস মেলেনি আজও। তাঁর পরিবারের সদস্যরাও এ ব্যাপারে কিছু বলতে পারেনি। এদিকে, এখনও সন্ধান মেলেনি উধাও হওয়া সহোদর পরিমল চন্দ্র ও নির্মল চন্দ্র সূত্রধরের পরিবারের।
গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টায় সরেজমিনে সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের ভুজারীপাড়ায় গিয়ে দেখা যায়, কমল চন্দ্র সূত্রধরের স্ত্রী, দুই ছেলে, পুত্রবধু ও একমাত্র নাতি বাড়িতে রয়েছেন। এ সময় কমল চন্দ্র সূূত্রধরের স্ত্রী ভারতী রাণী সূত্রধরের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ঋণের চাপে তাঁর স্বামীর ছোট দুই ভাই পরিবার পরিজন নিয়ে কাউকে কোন কিছুই না জানিয়ে ২৩ আগস্ট গভীর রাতে বাড়িঘরে তালা ঝুলিয়ে আত্মগোপন করে। এ অবস্থায় তারাও পাওনাদারের ভয়ে সৈয়দপুর থেকে ট্রেনে শান্তাহার হয়ে নওগাঁয় এক আত্মীয়ের বাড়িতে আশ্রয় নেন। সেখানে তাঁকে রেখে স্বামীও গাঢাকা দেন। তখন থেকে স্বামীর সঙ্গে তাঁর কোন যোগাযোগ নেই। স্বামী কমল চন্দ্র কোথায় তাও জানেন না তিনি। তবে তাঁর দুই পুত্র গোপাল ও খোকন তাদের স্ত্রীদের নিয়ে আগেই থেকেই শ্বশুর বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। তাদের সঙ্গে তাঁর সার্বক্ষণিক যোগাযোগ ছিল। পরে সকলের পরামর্শে এবং এলাকার মানুষের আশ্বাসে নিজ বাড়িতে ফিরে আসেন।
তিনি আরো বলেন , তাঁর স্বামী ও বড় ছেলের নামে তিনটি এনজিও থেকে দেড় লাখ টাকা ঋণ রয়েছে। যার কিস্তি নিয়মিত দেয়া হচ্ছে। তবে তাঁর দেবর পরিমল ও নির্মলের অনেক টাকা পয়সা ধারদেনা রয়েছে বলে জানান তিনি।
উল্লেখ্য, সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের ভুজারীপাড়ার তিন ভাইয়ের মধ্যে বড় ভাই কমল চন্দ্র সূত্রধর পেশায় হোটেল শ্রমিক আর মেজ ভাই পরিমল হোটেল এবং ছোট ভাই নির্মল ধান, গম,ভূট্টার পাইকারী ব্যবসায়ী। এদের মধ্যে পরিমল ও নির্মলের নামে কয়েকটি এনজিও, যমুনাসহ দুইটি ব্যাংক এবং স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে নেওয়া ধার দেনার পরিমাণ প্রায় তিন কোটি টাকার বেশি। আর ওই ঋণের কারণে পাওনাদারদের ভয়ে গত ২৩ আগস্ট বাড়িঘরে তালা ঝুলিয়ে তিন সহোদর তাদের পরিবারের ১৫ সদস্যকে নিয়ে উধাও হন।
তিন পরিবারের উধাও হওয়ার খবরে ব্যাংক ও এনজিও কর্তৃপক্ষসহ অন্যান্য পাওনাদাররা প্রতিদিনই তাদের খোঁজে বাড়িতে আসছেন। ফলে তাদের ধারদেনার পরিমাণও স্পষ্ট হয়ে ওঠে । এ অবস্থায় ইতিমধ্যে যমুনা ব্যাংকের সৈয়দপুর শাখার পক্ষ থেকে তাদের বাড়িতে ঋণের দায়বদ্ধতার সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে দেয়।
জানতে চাইলে বোতলাগাড়ি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো. মনিরুজ্জামান জুন উধাও হওয়া তিন পরিবারের মধ্যে কমল চন্দ্র সুত্রধরের পরিবারের সদস্যদের ফিরে আসার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সাইফুল ইসলাম জানান, বাড়িঘর ছেড়ে উধাও হওয়া তিন পরিবারের মধ্যে এক পরিবারের ৫ সদস্য বাড়িতে ফিরে এসেছেন। অপর দুইটি পরিবারের খোঁজে কাজ করছে থানা পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here