রংপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় সৈয়দপুর ছাত্রলীগের ২ নেতাসহ নিহত-৩, এলাকায় শোকের ছায়া

0
32

মিজানুর রহমান মিলন,সৈয়দপুর :
রংপুরের সৈয়দপুর-রংপুর মহাসড়কে সড়ক দুর্ঘটনায় সৈয়দপুর উপজেলা ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক অলিউল হাসান জুয়েল (২৬) ও ছাত্রলীগের সাবেক নেতা মহসিন আলী সাগর (৩৮) সহ সৈয়দপুরেরই ৩ জন নিহত হয়েছেন। তবে শেষের জনের এখনও সঠিক ঠিকানা পাওয়া যায়নি। ওই দুর্ঘটনায় সৈয়দপুর পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি শহিদুজ্জামান শুভ শেখের চাচা শ্রমিক নেতা মো. শামীম (৪২) গুরুত্বর আহত হয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সোমবার রাত সাড়ে ১২ টায় মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটেছে রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলার শলেয়াশাহ খারুভাজ সেতুর কাছে। সেখানে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৯ জন নিহত এবং প্রায় ৬০ জন আহত হয়েছেন। নিহত ৭ জনের পরিচয় মিললেও এখনও ২ জন রয়েছেন অজ্ঞাত হিসেবে।
দুর্ঘটনায় নিহত উপজেলা ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক ও কামারপুকুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক ছিলেন অলিউল হাসান জুয়েল। সে ওই ইউনিয়নের আদানীর মোড় এলাকার মৃত মঞ্জুরুল ইসলামের ছেলে। আর মহসিন হোসেন সাগর সৈয়দপুর শহরের শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম সংলগ্ন কুন্দল কলেজপাড়ার সাবেক ফুটবলার রেফারী মকবুল হোসেনের ছেলে। নিহত দুইজনই সৈয়দপুর বাস টার্মিনালে বিভিন্ন পরিবহণের কমিশন এজেন্টের দায়িত্বে ছিলেন। নিহত অপরজন সৈয়দপুর শহরের ক্যান্টবাজার এলাকার মাহবুব আলম (৪৮) বলা হলেও তারাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশ বলছে এখন সঠিক পরিচয় মেলেনি তার।

পুলিশের বরাত দিয়ে স্থানীয় সুত্র জানায় অলিউল হাসান জুয়েল ও মহসিন হোসেন সাগর পরিবহন সংশ্লিষ্ট কাজ শেষে রংপুরের মডার্ন মোড় থেকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহী জোয়ানা পরিবহনে সৈয়দপুরে ফিরছিলেন। পথিমধ্যে শলেয়াশাহ খারুবাজ সেতুর সামনে ঢাকাগামী ইসলাম এন্টারপ্রাইজ নামে বাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই সাগরসহ ৫ জন নিহত হয়। আর রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৫ টায় জুয়েল ও সকাল ১০ টায় মারা যায় মাহবুব আলম। সৈয়দপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহরিয়ার হাসান টুটুল বলেন, সংগঠনের জন্য নিবেদিত প্রাণ জুয়েল ও সাগর ভাই অত্যন্ত সাদা মনের মিশুক মানুষ ছিলেন। তাদের অস্বাভাবিক মৃত্যুতে আমরা গভীর শোকাহত। কামারপুকুর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জিকো আহমেদ বলেন, দলকে সুসংগঠিত করাসহ মানবিক কাজে সব সময় এগিয়ে থাকতো তারা। তারা ছিল সকলের স্নেহের পাত্র। তাঁদের হারিয়ে আমরা সকলে শোকাহত। সোমবার বাদ আসর শহরের কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে অলিউল হাসান জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। তাকে স্থানীয় হাতিখানা কবরস্থানে দাফন করা হয়। এরআগে বাদ জোহর সৈয়দপুর সরকারী কলেজ মাঠে মহসিন হোসেন সাগরের জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এদিকে ছাত্রলীগের ওই দুই নেতার অকাল মৃতুতে শোক জানিয়েছেন নীলফামারী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মনিরুল ইসলাম আপেল ও সাধারণ সম্পাদক মাসুদ সরকারসহ সৈয়দপুর আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ।

সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোখছেদুল মোমিন বলেন, ‘ অলিউল হাসান জুয়েল ও মহসিন হোসেন সাগরের মৃত্যুতে দুটি পরিবারের স্বপ্নের মৃত্যু হয়েছে। দু’জনের মায়ের কান্না কিছুতেই থামানো যাচ্ছে না। ছেলে হারা মায়েদের সান্ত্বনা দেওয়ার ভাষা নেই। দুর্ঘটনায় দায়ীদের যাতে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয় সরকারের কাছে এটাই দাবি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here