পাক সেনাদের বিরুদ্ধে জিয়ার গুলি করার নজির নেই’

0
30

খবর৭১ঃ বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান ৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে গুলি চালিয়েছিলেন তার কোনো নজির কেউ দেখাতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ছাত্রলীগ আয়োজিত আলোচনায় অংশ নিয়ে এ কথা বলেন তিনি। রাজধানীর খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে আয়োজিত আলোচনা সভায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী।

মুক্তিযুদ্ধে জিয়াউর রহমানের দায়িত্ব পালন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সেখানে খালেদ মোশাররফ আহত হয়ে গেল। জিয়াকে সেক্টর কমান্ডার করা হয়েছিল। জিয়াউর রহমান পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে কখনও গুলি চালিয়েছে এমন কোনো নজির নেই। এমন নজির কেউ দেখাতে পারবেন না।’

৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার ঘটনায় জিয়াউর রহমানকে খুনিচক্রের শক্তির মূল উৎস হিসেবে আখ্যায়িত করেন সরকারপ্রধান।

৭৫ পরবর্তী যারা ক্ষমতায় এসেছিল তাদের সমালোচনা করে শেখ হাসিনা ব‌লে‌ন, পঁচাত্তর পরবর্তীতে যারা ক্ষমতায় এসেছিল তারা ক্ষমতাটাকে ভোগের বস্তু হিসেবে গ্রহণ করেছিল, জনগণকে অবহেলা করেছিল। সেই প্রত্যন্ত অঞ্চলে গ্রামে যে মানুষটা পড়ে আছে, তাদের জীবন মানের উন্নয়ন করাটাই আমাদের লক্ষ্য। আর সেই লক্ষ্য নিয়েই আমাদের সংগঠন করতে হবে, তৈরি থাকতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, ‌জাতির পিতা কোনো কাজ অধরা রেখে যাননি। সব কাজের ভিত্তি তিনি প্রস্তুত করে গেছেন। যখনই এই পরাজিত শক্তি দেখলো আর বাংলাদেশকে বাধা দিয়ে রাখা যাবে না তখনই কিন্তু ১৫ আগস্টের ঘটনা ঘটিয়েছিল তারা।

‘সেই কথা মনে রেখেই কিন্তু আমাদের পথ চলতে হবে যে আমাদের পায়ে পায়ে শত্রু আছে, পদে পদে বাধা আছে, আমাদের চলার পথ মসৃণ না, কন্টকাকীর্ণ। আমাদের চড়াই উৎরাই পার হয়ে এগিয়ে যেতে হবে এবং আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। মাত্র ১২ বছরের মধ্যে আজকে বাংলাদেশ উঠে দাঁড়িয়েছে।–যোগ করেন বঙ্গবন্ধুকন্যা।

৭৫ এর পর বঙ্গবন্ধু নামটা মুছে ফেলা হয়েছে। বিকৃত ইতিহাস প্রচার করা হতো। জয় বাংলা স্লোগানও নিষিদ্ধ ছিল। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও আদর্শ নিষিদ্ধ করা হয়। ভাবখানা এমন দেশ স্বাধীন হয়নি। আজকে আর বঙ্গবন্ধুর নাম মুছা যাবে না। স্বাধীনতার ইতিহাস মুছা যাবে না। বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী, আমার দেখা নয়া চীন ও গোয়েন্দা ডায়েরি ৭ খণ্ডে প্রকাশ করেছি। সেখান থেকেই বাংলাদেশের ইতিহাস এবং সত্য বেরিয়ে আসে।

জিয়াউর রহমান ও তার স্ত্রী খালেদা জিয়া ছাত্রদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছিলেন এমন মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মেধাবী ছাত্রদের অস্ত্র, মাদক ও অর্থ তুলে দিয়ে বিপথে নিয়ে গেছে জিয়াউর রহমান। তার স্ত্রী খালেদা জিয়াও ক্ষমতায় এসে হুমকি দিয়েছিল, আওয়ামী লীগকে মোকবিলা করতে তার ছাত্রদলই যথেষ্ট। তিনিও ছাত্রদলের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছেন।

সরকারপ্রধান আরও বলেন, আওয়ামী লীগ শিক্ষার পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। সভায় পড়াশোনার পাশাপাশি দেশ ও জনগণের কাজে ছাত্রলীগকে মনোনিবেশ করার নির্দেশ দেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here