সৈয়দপুর থেকে ধান কাটতে নাটোর গেল ১৪ জন শ্রমিক

0
47

মিজানুর রহমান মিলন সৈয়দপুর থেকে :
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা বাস্তবায়নে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলা থেকে বিভিন্ন জেলায় জরুরীভিত্তিতে ইরি-বোরো ধান কাটার জন্য কৃষি শ্রমিক পাঠানো শুরু হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় ধান কাটতে ১৪ জন শ্রমিককে নাটোরে পাঠানো হয়েছে। আজ রবিবার তাদেরকে সৈয়দপুর থেকে মাইক্রোবাসের মাধ্যমে নাটোরের সিংড়া উপজেলায় পাঠানো হয়। বেলা ১১ টায় সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ কার্যালয় চত্বর থেকে ১৪ জন কৃষি শ্রমিকের একটি দলকে নিয়ে মাইক্রোবাসটি সিংড়ার উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। এর আগে মাইক্রোবাসযোগে ইরি-বোরা ধান কাটার জন্য শ্রমিকদের নাটোর যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে তাদের কাছে সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা কৃষি অফিসারের যৌথ স্বাক্ষরিত একটি প্রত্যায়নপত্র প্রদান করা হয়। সৈয়দপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিনের উপস্থিতিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাসিম আহমেদ কৃষি শ্রমিকদের দলনেতার হাতে প্রত্যয়নপত্রটি হস্তান্তর করেন। এছাড়াও করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে শ্রমিকদের মুখে ব্যবহারের জন্য সৈয়দপুর উপজেলা প্রশাসন থেকে প্রত্যেককে একটি করে মাস্ক দেওয়া হয়। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন শ্রমিকদের হাতে ওই মাস্ক তুলে দেন। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা কৃষি অফিসার শাহিনা বেগম, কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার মমতা সাহা ও মো. সালাহউদ্দিন প্রমুখ। প্রথম দফা ধান কাটার জন্য যে ১৪ জন কৃষি শ্রমিককে নাটোরে পাঠানো হয়েছে তারা সকলেই সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও সদস্যদের মাধ্যমে কৃষি বিভাগ শ্রমিকদের তালিকা সংগ্রহ করেন। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শাহিনা বেগম জানান, প্রথম দফায় আজ ১৪ জন ধান কাটার জন্য কৃষি শ্রমিককে নাটোরের সিংড়া উপজেলায় পাঠানো হয়। এখন থেকে পর্যায়ক্রমে দেশের বিভিন্ন জেলায় প্রয়োজন অনুযায়ী ধান কাটা শ্রমিকদের পাঠানো অব্যাহত থাকবে। প্রসঙ্গত,বর্তমানে ইরি-বোরো’র ভর মৌসুম। আর ইতোমধ্যে রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন জেলায় ইরি বোরো ধান কাটা-মাড়াই শুরু হয়েছে। কিন্তু চলমান করোনা ভাইরাস সংক্রমন প্রতিরোধে দেশব্যাপী চলছে কঠোর লকডাউন। এ কারণে সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে দেশের উত্তর জনপদের শ্রমিকরা যানবাহন বন্ধ থাকায় ধান কাটাতে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলো যেতে পারছেন না। এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন জেলায় জরুরী ভিত্তিতে ইরি-বোরো ধান কাটার জন্য কৃষি শ্রমিক প্রেরণের নিদের্শনা দিয়েছেন। আর প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে বিভিন্ন জেলায় জরুরীভিত্তিতে চলতি ইরি-বোরা মৌসুমে ধান কাটা শ্রমিক পাঠানো শুরু হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের সহযোগিতায় উপজেলা কৃষি বিভাগ উপজেলা থেকে বিভিন্ন জেলায় ধান কাটার জন্য শ্রমিক প্রেরণের কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here