বাংলাদেশকে হারিয়ে টি-২০তে এগিয়ে গেলো নিউজিল্যান্ড

0
49

খবর ৭১: নিউজিল্যান্ডের দেয়া ২১১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে রীতিমতো ধুঁকেছে বাংলাদেশ। ধুঁকতে ধুঁকতে শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ১৪৪ রান পর্যন্ত যেতে পারল টাইগাররা। তরুণ আফিফ হোসেন, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও মোহাম্মদ নাঈমের ব্যাটে যা একটু লড়াই করল। ৬৬ রানের জয়ে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে এগিয়ে গেল নিউ জিল্যান্ড।

বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড। রোববার হ্যামিল্টনে ম্যাচটি শুরু হয় সকাল ৭টায়।

নিউজিল্যান্ডের দেয়া ২১১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে পাওয়ার প্লের ৬ ওভারেই ধস নামে বাংলাদেশের ইনিংসে। এ সময়ে নেই টপঅর্ডারের চার ব্যাটসম্যান। এরপর আরও দুটি। ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম ১৮ বলে ২৭ করলেও লিটন দাশ, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিঠুন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মেহেদি হাসান কিউই বোলার বিশেষ করে স্পিনার ইশ সোধির সামনে দাঁড়াতেই পারেননি।

ম্যাচ থেকে বোলিংয়ে বাংলাদেশের একমাত্র ইতিবাচক দিক অভিষিক্ত নাসুম আহমেদের পারফরম্যান্স। ব্যাটিংয়ে ভালো করতে পেরেছেন কেবল আফিফ হোসেন (৩৩ বলে ৪৫)। শেষদিকে সাইফউদ্দিনকে নিয়ে ৫৬ বলে ৬৩ রানের জুটি গড়ে ব্যবধান কিছুটা কমান আফিফ। লোকি ফার্গুসনের বলে আউট হওয়ার আগে ৩৩ বলে ৫টি চার ও একটি ছক্কায় সর্বোচ্চ ৪৫ রান করেন আফিফ। ৩৪ বলে ৩৪ রান করে অপরাজিত থাকেন সাইফউদ্দিন।

নিজের ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করেছেন কিউই লেগ স্পিনার সোধি। ৪ ওভারে ২৮ রান দিয়ে তার শিকার ৪ উইকেট। ফার্গুসন ২ উইকেট নেন। এছাড়া টিম সাউদি ও হামিশ বেনেট একটি করে উইকেট দখল করেন।

এর আগে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে প্রথমে ব্যাট করা নিউজিল্যান্ডে ডেভন কনওয়ের অপরাজিত ঝড়ো ৯২ ও উইল ইয়ংয়ের হাফসেঞ্চুরিতে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ২১০ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করায়।

বোলিংয়ে শুরুটা অবশ্য ভালো করেছিল টাইগাররা। প্রথম ওভারেই উইকেট তুলে নেন অভিষিক্ত স্পিনার নাসুম আহমেদ। ওভারের ষষ্ঠ বলে নিউজিল্যান্ড ওপেনার ফিন অ্যালেনকে বোল্ড করেন। পরে আরেক ওপেনার মার্টিন গাপটিলকেও আউট করেন এই বাঁহাতি। নিজের তৃতীয় ও দলীয় সপ্তম ওভারে ২৭ বলে ৩৫ রানে থাকা গাপটিলকে সৌম্য সরকারের ক্যাচ বানান তিনি। এই জুটি ৩৮ বলে ৫২ রান করে।

এরপরে ইয়ংকে সঙ্গে নিয়ে তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৬০ বলে ১০৫ রান করেন কনওয়ে। ৩০ বলে ২টি চার ও ৪টি ছক্কায় ৫৩ করে ইয়ং মেহেদি হাসানের বলে আউট হন। তবে কনওয়ে চতুর্থ উইকেটে গ্লেন ফিলিপসকে নিয়ে আরও ৫২ রান করেন। শেষ পর্যন্ত বাঁহাতি কনওয়ে ৫২ বলে ৯২ রানে অপরাজিত থাকেন। তার ইনিংসে ১১টি চার ও ৩টি ছক্কা ছিল। আর ১০ বলে ২৪ করেন ফিলিপস।

এই ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হলো বাংলাদেশের নাসুম আহমেদ ও শরিফুল ইসলামের। ওয়ানডের পর দেশে ফিরে গেছেন তামিম ইকবাল। কাঁধের চোটে ছিলেন না মুশফিকুর রহিমও।

এর আগে কিউইদের বিপক্ষে তিন ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এখনও কোনো ম্যাচ জিততে পারেনি টাইগাররা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here