সেতুর চিত্র বদলেছে, বাড়ল নিরাপত্তা ও টহল

0
31

খবর৭১ঃ দীর্ঘদিনের লালন করা স্বপ্নের পদ্মা সেতুর দুয়ার খুলেছে রবিবার সকালে। এদিন সাধারণ মানুষের চলাচলের জন্য সেতুটি উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। কিন্তু চালুর প্রথম দিনেই বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটে। এতে নড়েচড়ে বসে সরকারের বিভিন্ন সংস্থা।

সেতু ও তার আশপাশে নিরাপত্তা জোরদার ও সতর্ক অবস্থান নিয়েছে সরকার। আর সেতু নিয়ে যারা ষড়যন্ত্র করছে তাদের শনাক্তে মাঠে কাজ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

সাধারণের চলাচলের প্রথম দিনেই সেতুতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুজনের প্রাণহানি, সেতুর রেলিংয়ের নাট-বল্টু খুলে টিকটক, পদ্মা সেতুতে সিজদারত যুবকের ছবি, সেতুতে মূত্র বিসর্জনের ছবি, সেতুতে দাঁড়িয়ে নারীর টিকটক ভিডিও তৈরিসহ বিভিন্ন ঘটনা ঘটে। তবে সোমবার এসব ঘটনা অনেকটা নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

সেতুর কংক্রিটের নিরাপত্তা দেয়ালের (প্যারাপেট ওয়াল) ওপর স্টিলের কাঠামো মোটা স্ক্রু দিয়ে সংযুক্ত। সেই কাঠামোর নাট-বল্টু খুলে টিকটক কাণ্ডের পর সোমবার সেতু কর্তৃপক্ষ সেগুলোতে আঠা লাগিয়ে দিয়েছে; যাতে সহজে কেউ তা খুলে ফেলতে না পারে। দিনের পাশাপাশি রাতেও সেতু ও আশপাশে নিরাপত্তা ও টহল বাড়ানো হয়েছে।

এর আগে শনিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু উদ্বোধন করেন। এ দিন সেতুর দুই প্রান্তের ফলক উন্মোচন করেন তিনি। নির্ধারিত টোল পরিশোধ করে পদ্মা সেতুতে ওঠেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর রবিবার ভোর ৬টা থেকে পদ্মা সেতু দিয়ে সব ধরনের যানবাহন চলাচল শুরু হয়।

যানচলাচল শুরুর দিনে সেতুর নাট-বল্টু খুলে টিকটক করেন বায়েজিদ তালহা নামের এক যুবক। এ ভিডিও ভাইরাল হলে শুরু হয় সমালোচনা। তাকে ধরতে মাঠে নামে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ওই দিন বিকালে রাজধানীর শান্তিনগর এলাকা থেকে তাকে আটক করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি। পরে তার বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা হয়। পরে বায়েজিদকে আদালতে তোলা হলে সাতদিনের রিমাণ্ড মঞ্জুর করে শরীয়তপুরের মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মো. সালেহুজ্জামান। বর্তমানে মামলাটি তদন্ত করছে সিআইডি।

সিআইডির সাইবার পুলিশের বিশেষ পুলিশ সুপার মো. রেজাউল মাসুদ ঢাকাটাইমসকে বলেন, বায়েজিদ সেতুতে দাঁড়িয়ে যে কাজ করেছে এর পেছনে আরো কয়েকজন আছে। তাদের শনাক্তে কাজ করা হচ্ছে।

এদিকে সেতুতে মূত্রত্যাগের ঘটনায় অভিযুক্ত যুবককে খুঁজে বের করতে মাঠে কাজ করছে পুলিশ। ভাইরাল হওয়া একটি ছবিতে পদ্মা সেতুর ওপরে একজনকে প্রস্রাব করতে দেখা যায়।

নিয়ম ভাঙার হিড়িক ও মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার পর পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ করে সেতু কর্তৃপক্ষ। তবে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও সেতু পারাপারে নানান কৌশল অবলম্বন করছেন সাধারণ মানুষ। সোমবার ভোর ৬টা থেকে নিষেধাজ্ঞা কার্যকর শুরু হলে বিকল্প পন্থায় মোটরসাইকেল পারাপার করতে দেখা গেছে।

বাইকাররা সেতু পারাপারে কৌশল হিসেবে মিনি ট্রাক ব্যবহার করছেন। সেতুতে ওঠার কিছুটা আগ মুহূর্তে বাইকগুলো মিনি ট্রাকে তোলা হচ্ছে। সেখানে প্রতি মোটরসাইকেল বাবদ ট্রাককে দিতে হচ্ছে ৪০০ টাকা। আর প্রতিটা ট্রাক পার করছে আটটি মোটর সাইকেল। তবে অভিনব পদ্ধতিতে মোটরসাইকেল পারাপার ঠেকাতে কাজ করছে সেখানকার পুলিশ।

সেতু নির্মাণ প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, প্রথম দিনের অভিজ্ঞতা মাথায় রেখে সেতুর নিরাপত্তা রক্ষায় এখন কঠোর প্রশাসন। দেখা গেছে, সেতুর ওপর যানবাহন থেকে নামা নিষিদ্ধ থাকলেও সাধারণ যাত্রীরা সেতুর উপরিভাগে নেমে সেতুর গুরুত্বপূর্ণ মালামাল চুরি ও ক্ষতি করছে। তাছাড়া সেতুর উপরিভাগ এবং উভয় প্রান্তে জরুরিভিত্তিতে টহল জোরদার করা হয়েছে। নানাভাবে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য সেতুর টোল প্লাজায় মাইকিং করা হচ্ছে।

টোল সিস্টেম মেন্যুয়ালি চললেও সেটা ডিজিটাল করা হবে কিনা তা নিয়ে সেতু কর্তৃপক্ষের এখনই কোনো পরিকল্পনা নেই বলে জানা গেছে।

সাধারণ মানুষ যেন সেতুতে চলাচলের সময় নির্ধারিত আইন মেনে চলে, তা নিশ্চিত করতে সোমবার অতিরিক্ত কড়াকড়ি আরোপ করে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এদিন থেকে সেতুতে মোটরসাইকেল প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না। সেতুর ওপর রাস্তার পাশে মানুষকে দাঁড়াতে বা পরিবহন থেকে নামতে দেওয়া হয়নি। সেতুতে হেঁটেও উঠতে দেয়া হচ্ছে না মানুষকে।

রবিবার সেতুর ওপর যেমন চিত্র দেখা গেছে, সোমবার পরিস্থিতি তা থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন ছিল। সেতুর ওপর কোথাও কোথাও গাড়ি থামিয়ে মানুষজনকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেলেও কিছুক্ষণের মধ্যেই সেনাবাহিনীর টহল গাড়ি তাদের সরিয়ে দেয়। পুরো সেতু এলাকাতেই আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতি অনেক দেখা গেছে।

এদিকে বিকেল ৫টার দিকে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর উত্তর ভায়াডাক্টে পিয়াজবাহী একটি পিকআপ উল্টে পাঁচজন আহত হন। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ফরিদপুর থেকে ১৩৪ বস্তা পিয়াজ নিয়ে ঢাকার শ্যামবাজারে যাচ্ছিল পিকআপটি। সেতুর মাওয়া প্রান্তে সেটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। পরে সেতুর রেলিংয়ে ধাক্কা খেয়ে উল্টে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here