বেনাপোলে ফায়ার সার্ভিসের দূরদর্শিতায় ঘরবন্ধীতা থেকে রক্ষা রাবেয়া’র

0
177

শেখ কাজিম উদ্দিন, বেনাপোল : বেনাপোলে ফায়ার সার্ভিসের দূরদর্শিতায় ঝড়ের কবলে পড়া ঘরবন্ধীতা থেকে রক্ষা পেয়েছেন রাবেয়া খাতুন(২৬)। রবিবার বিকেলে এক দমকা ঝড়ো হাওয়ায় ৪র্থ তলা ভবনের ৪র্থ তলায় অবস্থিত তার ঘরের সিডের দরজা আকষ্মিকভাবে বন্ধ হয়েযায়। যা কোনভাবেই খুলতে পারছিলেননা তিনি। প্রায় ৪ ঘন্টা শ^াষরুদ্ধকর অবস্থায় ছিলেন। মোবাইলটি রাখা ছিলো বারান্দায়। যেকারণে কাউকে ফোন দিয়ে নিজের বিপদের কথাটি জানাতে পারেননি তিনি। উপর থেকে জ¦ানালা দিয়ে ইশারা করেছিলো নিচে দিয়ে যাওয়া পথচারিদের কিন্তু বৃষ্টির পরিমাণ একটু বেশি থাকায় কেউ তা খেয়াল করেননি। বিকাল ৫টার দিকে তার স্বামী মারুফ অফিস থেকে স্ত্রীকে অনেকবার ফোন করেছিলো। ফোন বাহিরে থাকায় তা রিসিভ হয়নি। অবশেষে কোন বিপদ হলো কিনা ভেবে অফিস থেকে বাড়িতে আসেন তিনি। দেখে বাহিরের গেটে তালামারা, উপরে কেউ নেই। এসময় তিনি তার স্ত্রীকে অনেক ডাকাডাকি করেন। একসময়ে ঘরের ভিতর বন্দিদশার কথা জানালেন রাবেয়া খাতুন।
এসময় ফায়ার সার্ভিসের হেড কোয়ার্টার ঢাকায় ফোন দেয় মারুফ। সেখান থেকে বেনাপোল ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে একদল চৌকষকর্মী এসে ২০ মিনিটের অব্যার্থ প্র”েষ্টায় বিভিন্ন উন্নতমানের মেশিন ব্যবহার করে তাকে অক্ষতবস্থায় উদ্ধার করেন। যা বর্ণণা মোতাবেক জানালেন ঘরবন্দীতা থেকে মুক্ত হওয়া রাবেয়া খাতুনের স্বামী মারুফ হোসেন। তিনি বেনাপোল ফায়ার সার্ভিসের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন।

ঘটনাটি ঘটেছিলো বেনাপোলের বড়আঁচড়া গ্রামের এমপির মোড় নামক স্থানে অবস্থিত এনামুল হক লিটুর ৪র্থ তলা ভবনে।

এ বিষয়ে বেনাপোল ফায়ার সার্ভিসের অফিসার ইনচার্জ রতন জানান, এক ঝড়ো দমকা হাওয়ায় বেনাপোলের বড় আঁচড়া গ্রামের এমপির মোড়ে অবস্থিত লিটুর ৪র্থ তলা ভবনের ৪ তলার ভাড়াটিয়া রাবেয়া খাতুনের ঘরের দরজা বন্ধ হয়েযায়। প্রায় ৪ ঘন্টা শ^াষরুদ্ধকর অবস্থার পরে তারা ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। এসময় তার নেতৃত্বে দ্রুত পদক্ষেপ নিয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি চৌকষ দল ২০ মিনিটের অব্যর্থ প্রচেষ্টায় রাবেয়া খাতুনকে অক্ষতবস্থায় উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here