গাইবান্ধায় জামায়াতের ৮ নেতা-কর্মীর আমৃত্যু কারাদন্ড

0
25

আবু বক্কর সিদ্দিক, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি: গাইবান্ধার পলাশবাড়ি উপজেলার পলাশবাড়ি আদর্শ ডিগ্রী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে অব্যাহতি দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে কৃষক হাসান আলীকে হত্যা মামলায় জামায়াতের ৮ নেতা-কর্মীকে আমৃত্যু কারাদন্ডাদেশ ও প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে অনাদায়ে আরও ৩ মাসের সশ্রম কারাদন্ডাদেশ দিয়েছেন জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক দীলিপ কুমার ভৌমিক।
বৃহস্পতিবার দুপুরে এ রায় প্রদান করা হয়। আমৃত্যু কারাদন্ডাদেশপ্রাপ্তরা হলেন- পলাশবাড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা জামায়াতের সাংগঠনিক সংগঠক নজরুল ইসলাম লেবু। অন্যান্যরা হলেন- একই রাজনৈতিক দলের আব্দুর রউফ, শাহজালাল, গোলাম মোস্তফা, শাহ আলম, ফারুক মিয়া, মিজানুর রহমান মিজান ও আবু তালেব। রায় ঘোষণার সময় ৬ আসামি উপস্থিত থাকলেও আসামি মিজানুর রহমান মিজান ও আবু তালেব পলাতক ছিলেন।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ১৯৯৯ সালে উক্ত কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে অব্যাহতি প্রদান করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে উপজেলার সুইগ্রাম ও আমবাড়ী গ্রামের মানুষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে ২ গ্রামবাসীর মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, সংর্ঘষ ও মারধরের ঘটনা ঘটে। এরই জের ধরে একই সালের (১৯৯৯ সাল) ২২ অগাস্ট আমবাড়ী গ্রামের হাসান আলীকে হত্যার উদ্দেশ্যে আক্রমণ করেন আাসামিরা। এতে হাসান আলী গুরুতর আহত ও পরে বগুড়া মোহাম্ম্দ আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবি ফারুক আহম্মদ রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান- দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম লেবু, জামায়াত নেতা আব্দুর রউফ, শাহজালাল, গোলাম মোস্তফা, শাহ আলম, ফারুক মিয়া, মিজানুর রহমান মিজান ও আবু তালেব। আসামী পক্ষের আইনজীবি আব্দুল হালিম প্রামণিক এ রায়ে আমরা সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, উচ্চ আদালত আপীল করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here