যেসব খাবার স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ায়

0
46

খবর৭১ঃ মস্তিষ্কের কোনো অংশে রক্ত চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে সাধারণত স্ট্রোক হয়। দৃশ্যত এটি মস্তিষ্কের টিস্যুর ক্ষতি করে। অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস, স্থূলতা এবং ব্যায়ামের অভাব এমন কিছু জীবনধারার কারণ যা স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ায়। তেমনই কয়েকটি খাবার স্ট্রোকের জন্য সমানভাবে দায়ী। তাই কিছু খাবার থেকে দূরে থাকতে হবে। তাই, স্ট্রোক এড়াতে এই সব এড়িয়ে চলা জরুরি।

লবণ খাওয়া সীমিত করুন

লবণ স্ট্রোকের জন্য একটি বড় ঝুঁকি। এখানে লবণ বলতে প্যাকেটজাত খাবার এবং প্রক্রিয়াজাত লবণকে বলা হচ্ছে। জেনে রাখুন, প্যাকেটজাত খাবারে প্রয়োজনের চেয়ে বেশি লবণ থাকে। আপনি যদি নিয়মিত এই জাতীয় খাবার খান তবে এটি আপনার রক্তচাপ এক চিমটে বাড়িয়ে দেবে, যা ধমনী, মস্তিষ্ক এবং হৃদপিণ্ডকে খারাপভাবে প্রভাবিত করবে।

তাই যতটা সম্ভব প্রক্রিয়াজাত ও প্যাকেটজাত খাবার থেকে দূরে থাকুন। দিনে ৫ গ্রাম লবণ খাওয়া কমিয়ে দিলে উচ্চরক্তচাপের সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে এবং স্ট্রোকের ঝুঁকিও কমে যাবে।

ধূমপান এবং প্রসেসড মিট এড়িয়ে চলুন

গোটা বিশ্বে ধূমপায়ীদের সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলেছে। আর ধূমপানের এই নেশা ছাড়তে চেয়েও বারবার ব্যর্থতার মুখ দেখতে হয়েছে অসংখ্য মানুষকে। এমনকি আপনি যদি হট ডগ, বেকন, সালামির মতো খাবারগুলো খেতে ভালো লাগলেও যত তাড়াতাড়ি আপনি এটি খাওয়া বন্ধ করবেন ততই ভালো। আসলে, সোডিয়াম নাইট্রেটের মতো কিছু প্রিজারভেটিভ যোগ করা হয়, যা রক্তনালীকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। এমতাবস্থায় কেউ যদি এসব খাবার গ্রহণ করেন তাহলে স্ট্রোকের ঝুঁকি এড়ানো যায় না।

এই প্রিজারভেটিভগুলো প্রায়ই অক্সিডেটিভ স্ট্রেস সৃষ্টি করে, যা জাহাজের প্রাচীরের ক্ষতির দিকে নিয়ে যায়। অতএব, প্রথম মুহুর্তে, আপনার ডায়েটে প্রক্রিয়াজাত এবং ধূমপানযুক্ত মাংসের গ্রহণ সীমাবদ্ধ করা উচিত।

প্রক্রিয়াজাত খাবার খাওয়া বন্ধ করুন

আপনি যদি জাঙ্ক এবং ট্রান্সফ্যাট সমৃদ্ধ খাবার দিয়ে আপনার দিন শুরু করেন, তবে আপনার সতর্ক হওয়া উচিত। এই খারাপ খাদ্যাভ্যাস স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ায়। চিকিৎসকদের মতে, জাঙ্ক ফুডে সাধারণত প্রচুর ট্রান্সফ্যাট থাকে, যা এলডিএল নামক খারাপ কোলেস্টেরলের জন্ম দেয়। এটি ধমনীতে জমা হয় এবং শরীরে প্রদাহ সৃষ্টি করে। কোলেস্টেরল শরীরের প্রদাহ বৃদ্ধি এবং হার্ট অ্যাটাকের প্রধান কারণ ব্যাখ্যা কর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here