মোটরসাইকেল জনিত দূর্ঘটনারোধে সৈয়দপুরে ট্রাফিক পুলিশের মাসব্যাপী সচেতনতামূলক কার্যক্রম চলছে

0
43

মিজানুর রহমান মিলন সৈয়দপুর :
“চলেন যদি হেলমেট ছাড়া মরণ আপনাকে করবে তাড়া”
এ শ্লোগানকে সামনে রেখে নীলফামারীর সৈয়দপুরে ট্রাফিক বিভাগের মাসব্যাপী অভিযান ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। মোটরসাইকেল জনিত দূর্ঘটনারোধে হেলমেট ব্যবহারে সচেতনতামূলক প্রচারণা ও একই বাইকে তিনজন উঠা বন্ধে গত ১ অক্টোবর থেকে অভিযান শুরু হয়েছে। নীলফামারী জেলা পুলিশের উদ্যোগে সৈয়দপুরসহ গোটা জেলায় ওই কর্মসুচি পালন করা হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে আজ সোমবারও সৈয়দপুর শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে ট্রাফিক আইন বিষয়ক সচেতনতামূলক কর্মসূচি ও হেলমেটবিহীন মোটর
সাইকেল আটক অভিযান চালায় নীলফামারী জেলা পুলিশের সৈয়দপুর ট্রাফিক বিভাগ। শহরের বঙ্গবন্ধু চত্বরের পাঁচমাথা মোড়, শহীদ ডা. জিকরুল হক সড়কস্থ মদিনা মোড়, ১নং রেলওয়ে ঘুমটি মোড়,বাসটার্মিনাল, পানি উন্নয়ন বোর্ড মোড় (পার্বতিপুর রোড), পার্বতিপুর রোডে আর্মি চেকপোস্ট মোড়, উপজেলা রোডের সিএসডি মোড়, ওয়াপদা মোড়, সোনাপুকুর রাবেয়া ফ্লাওয়ার মিল মোড়সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে চলে সচেতনতামূলক কার্যক্রম ও হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেল আটক অভিযান। সুত্র জানায়, গত ১ অক্টোবর থেকে মাসব্যাপী শুরু হওয়া অভিযান চলাকালে ট্রাফিক আইন অমান্য করে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেল চালানোর দায়ে চালক ও মালিকের বিরুদ্ধে আজ সোমবার দুপুর পর্যন্ত ৬০ টি মামলা করা হয়েছে। এছাড়া দুইজনের বেশী মোটর
সাইকেলে চড়া অবৈধ জেনেও চালকসহ তিনজন মোটরসাইকেলে থাকায় এমন ১০ জনের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হয়। নীলফামারী জেলা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের শহর ও যানবাহন পরিদর্শক মো. আবু নাহিদ পারভেজ চৌধুরীর নেতৃত্বে এ অভিযান অব্যাহতভাবে পরিচালনা করছেন ট্রাফিক সার্জেন্ট মো. আশরাফ,
কোরায়শী,শহর যানবাহন উপ পরিদর্শক মো. আব্দুল খালেকসহ ট্রাফিক বিভাগের অন্যান্য সদস্যরা। অভিযান চলাকালে আজ সোমবার দুপুরে শহরের বঙ্গবন্ধু চত্বরের পাঁচমাথা মোড়ের ট্রাফিক বক্সের সামনে কথা হয় নীলফামারী জেলা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের শহর ও যানবাহন পরিদর্শক মো. আবু নাহিদ পারভেজ চৌধুরীর সঙ্গে। এসময় তিনি বলেন মোটরসাইকেল দূর্ঘটনারোধে জনসচেতনতা সৃস্টি ও হেলমেট বিহীন মোটর সাইকেল আটক অভিযান সফল করতে ট্রাফিক বিভাগ তৎপর রয়েছে। নীলফামারী জেলা পুলিশের নির্দেশনায় এ অভিযান চলবে গোটা অক্টোবর মাস পর্যন্ত। মোটরসাইকেল জনিত দূর্ঘটনারোধে সচেতনতামূলক স্টিকার লাগানো এবং মাইক প্রচার অব্যাহত রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন বাড়ি থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে বের হলে বাবা মাসহ পরিবারের লোকজন অপেক্ষায় থাকে তার প্রিয়জন কখন বাসায় ফিরবে। কিন্তু অনেক সময় হেলমেট না থাকার কারণে ঘটে যায় দূর্ঘটনা। ফলে অনেক পরিবারে নেমে আসে দুঃখ দূর্দশা। তাই এমন অবস্থা সৃস্টি হওয়ার আগেই ট্রাফিক আইন মেনে হেলমেট ব্যবহারে সকলকে সচেতন করতে এ অভিযান শুরু হয়েছে। এজন্য তিনি সকল মোটরসাইকেল চালক ও মালিককে সচেতন হওয়ার আহবান জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here