কালো বলে দমিয়ে রাখা যায়নি এষাকে

0
26

খবর৭১ঃ ভারতে বর্ণবিদ্বেষমূলক ঘটনা প্রায়ই ঘটে। কখনও রঙ কালো হওয়ায় বিয়েতে প্রত্যাখ্যাত হচ্ছেন কোনো নারী, কাউকে আবার অপমানজনক মন্তব্যের শিকার হতে হচ্ছে। বিশেষত ফিল্ম ও মডেলিংয়ের জগতে বহু দিন ধরেই এমন সমস্যার শিকার হয়ে আসছেন কলাকুশলীরা।

সম্প্রতি তেমনই এক অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করে নিলেন অভিনেত্রী এষা গুপ্তা। ২০০৭ সালে ইমরান হাসমির বিপরীতে ‘জান্নাত টু’ ছবির মাধ্যমে অভিষেক হয়েছিল তার। এরপর থেকে নিজের ছবির জন্য না হলেও সাজ-পোশাক এবং রূপটানের জন্য মাঝেমাঝেই শিরোনামে উঠে এসেছেন তিনি।

কিন্তু বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে জায়গা করে নেওয়া সহজ ছিল না এষার জন্য। বিশেষ করে, নিজের গায়ের রঙের জন্য। অভিনেত্রীর গায়ের রঙ সামান্য চাপা হওয়ায় প্রথম থেকেই আলাদা করে রাখা হয়েছিল তাকে। তার সহকর্মীরাও তাকে উপদেশ দিতেন ফর্সা হওয়ার জন্য।

একটি সাক্ষাৎকারে এষা অকপটে জানিয়েছেন যে, এমন এক সময় ছিল যখন তার রূপটান শিল্পীরাও সচেতন ভাবে চেষ্টা করতেন তার কালো রঙ ঢেকে দিতে। ‘সেক্সি’ বা লাস্যময়ী হিসেবে সহজেই তাকে দেগে দেওয়া হয়েছিল, যেহেতু তার গায়ের রঙ কালো।

তার কথায়, ‘এমন কিছু মেকআপ আর্টিস্টও ছিল যারা আমাকে সব সময় ফর্সা করতে চেষ্টা করত এবং এর ফলে আমার গোটা শরীরকেই আলাদা করে রং করতে হতো। কারণ আমার মুখের রঙের সঙ্গে গায়ের রঙ মিলত না।’

কালো হওয়ার জন্য তিনি আবার একই সঙ্গে যৌন আবেদনময়ী। কারণ হিসেবে এষা বলেন, ‘আমাদের দেশে ফর্সা মানেই ‘পাশের বাড়ির মেয়ে এবং শরীফ (সৎ), কালো মানেই খারাপ বা লাস্যময়ী।’

তবে কালো হলেও দমিয়ে রাখা যায়নি এষাকে। নিজেকে তিনি ঠিকই প্রতিষ্ঠিত করেছেন বলিউডে। শিগগিরই তাকে দেখা যাবে সৌমিক সেন পরিচালিত একটি থ্রিলার ওয়েব সিরিজে। এই সিরিজে তার সঙ্গে অভিনয় করছেন মল্লিকা শেরাওয়াত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here