ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁকে প্রকাশ্যে চড়ের ঘটনায় গ্রেফতার ২

0
45

খবর৭১ঃ
যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের মতো বিব্রতকর অভিজ্ঞতার শিকার হলেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁও।

২০০৮ সালের ডিসেম্বরে বুশের মুখ লক্ষ করে পায়ের জুতো ছুড়ে মেরেছিলেন বাগদাদের এক সাংবাদিক। আর মঙ্গলবার নিজ দেশেরই নাগরিকে হাতে কষে থাপ্পড় খেলেন প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ।

ভিড়ের মধ্যে আচমকাই ম্যাক্রোঁকে চড় মেরে বসেছেন এক ব্যক্তি। এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে খবর জানিয়েছে বিএফএম টিভি এবং আরএমসি রেডিও।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, মঙ্গলবার দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় ফ্রান্সের ড্রোম অঞ্চলে সরকারি সফরকালে জনতার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে ব্যারিকেডের কাছে যান ফরাসি প্রেসিডেন্ট। এ সময় ব্যারিকেডের উলটো দিক থেকে এক যুবক হাত বাড়িয়ে আচমকা প্রেসিডেন্টের গালে থাপ্পড় মেরে বসেন।

সঙ্গে সঙ্গেই নিরাপত্তা সদস্যরা ম্যাক্রোঁকে দ্রুত সেখান থেকে সরিয়ে নেন এবং থাপ্পড় মারা যুবককে আটক করেন। প্রেসিডেন্টকে থাপ্পড় মারার সময় ঘটনাস্থলে ‘ম্যাক্রোঁবাদ নিপাত যাক’ স্লোগান দেওয়া হচ্ছিল।

করোনার বিস্তার ঠেকাতে আরোপ করা নানা বিধিনিষেধ তোলার পর কিভাবে মানুষ আবার স্বাভাবিক জীবনে ফিরছে তা নিয়ে কথা বলার জন্য ম্যাক্রোঁ ওই এলাকার রেস্তোরাঁকর্মী ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন ।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়েছে সেই থাপ্পড় মারার দৃশ্য।

ভিডিওতে ম্যাক্রোঁকে সমর্থকদের দিকে করমর্দনের জন্য হাত বাড়িয়ে এগিয়ে যেতে দেখা যায়।

এসময় সবুজ টি-শার্ট গায়ে চোখে সানগ্লাস ও মুখে মাস্ক পরা এক ব্যক্তিকে ‘ডাউন উইথ ম্যাক্রোঁনিয়া’ বলে চিৎকার করে ওঠেন এবং প্রেসিডেন্টের গালে চড় মারেন।

এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন ফরাসি রাজনীতিবিদরা।

ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী জ্যঁ ক্যাসটেক্স এ ঘটনাকে গণতন্ত্রের উপর আক্রমণ বলে বর্ণনা করেছেন।

ঘটনার পরপরই ফরাসি প্রধানমন্ত্রী জ্যঁ ক্যাসেক্স ফ্রান্সের জাতীয় সংসদে বলেছেন, গণতন্ত্রে বিতর্ক এবং বৈধ মতপার্থক্য থাকতে পারে, তবে এর অর্থ কোনোভাবেই সহিংসতা, মৌখিক ও শারীরিক আক্রমণ হওয়া উচিত নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here