ছেলেকে নিয়ে শাকিবের কাণ্ডে হতবাক অপু

0
24

খবর৭১ঃ ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত জুটি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের ডিভোর্স হয়েছে তিন বছর আগে। সেই থেকে একমাত্র সন্তান ছেলে আব্রাম খান জয়কে বলতে গেলে নায়িকা একা হাতেই সামলাচ্ছেন। সেই সন্তানকেই শাকিব খান তার কাছ থেকে কেড়ে নেওয়ার পায়তারা করছেন বলে সংবাদমাধ্যমে অভিযোগ করেছেন অপু বিশ্বাস। কিন্তু কীভাবে?

ঘটনা হচ্ছে, চলতি মাসের শুরুতে একটি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে অংশ নিতে যুক্তরাষ্ট্রে যান শাকিব খান। ওই অনুষ্ঠান অনেক আগে শেষ হয়ে গেলেও এখনো যুক্তরাষ্ট্রেই রয়েছেন বাংলাদেশি কিং খান। গুঞ্জন উঠেছে, শাকিব নাকি দেশটির নাগরিকত্ব চেয়ে আবেদন করেছেন। একই সঙ্গে আবেদন করেছেন ছেলে আব্রাম খান জয়ের নাগরিকত্বের জন্যও।

এ সম্পর্কে জানতে শাকিব খানের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি, যেহেতু তিনি এখনো মার্কিন মুলুকে রয়েছেন। কিন্তু কথা তো পড়ে থাকে না। খবরটি পৌঁছে গেছে নায়কের সাবেক স্ত্রী অপু বিশ্বাসের কানে। জয়ের মার্কিন নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করা হয়েছে, এটা জানার পর তিনি বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। শাকিব ছেলেকে তার কাছ থেকে দূরে সরিয়ে নিতে চান বলেও মন্তব্য করেছেন।

অপু বিশ্বাসের কথায়, ‘বিষয়টি জানার পর আমি স্তব্ধ হয়ে গেছি। এ বিষয়ে আর কথা বলতে চাই না। আব্রাম ছোটবেলা থেকেই আমার সঙ্গে থাকে। তাকে মানুষ করতে দিন-রাত পরিশ্রম করছি। গত এক সপ্তাহে চট্টগ্রাম, নরসিংদীতে শো করেছি। আগামী শো করব নোয়াখালীতে। এত সব তো আব্রামের জন্যই করছি। ওকে যদি কেউ আমার কাছ থেকে ছিনিয়ে নিতে চায় সেটা অন্যায় হবে।’

তবে এ ঘটনা কতটা সত্যি বা মিথ্যা, তা জানা যাবে শাকিব খান যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরে মুখ খোলার পরই। আপাতত সেই পর্যন্ত অপেক্ষা।

২০০৮ সালে গোপনে বিয়ে করেছিলেন ৭০টিরও বেশি ছবির সফল জুটি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। দীর্ঘ ৯ বছর সে খবর গোপন রেখেছিলেন। ২০১৬ সালের শুরুর দিকে হঠাৎ উধাও হয়ে যান অপু। ফিরে আসেন ২০১৭ সালে। ওই বছরেরই ১০ এপ্রিল সাত মাসের ছেলে জয়কে নিয়ে বেসরকারি টিভি চ্যানেল নিউজ টোয়েন্টিফোরের লাইভ অনুষ্ঠানে হাজির হন নায়িকা। ফাঁস করেন সবকিছু।

এর কয়েক মাস পরেই নানা অভিযোগ তুলে ২০১৭ সালের ২২ নভেম্বর অপুকে তালাকের নোটিশ পাঠান শাকিব। পরবর্তীতে তারকা জুটির সংসার টেকাতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন একাধিক বার সালিশি বৈঠক ডাকলেও লাভ হয়নি। ফলে ২০১৮ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি তালাকের নোটিশ পাঠানোর ৯০ দিন পূর্ণ হওয়ায় আইনগত ভাবে শাকিব-অপুর তালাকও কার্যকর হয়ে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here