আজকের বাংলাদেশকে সোনার বাংলাদেশে পৌঁছে দেব: প্রধানমন্ত্রী

0
55

খবর৭১ঃ মহান মুক্তিযুদ্ধে বাঙালির বিজয়ের ৫০ বছরে দাঁড়িয়ে সমৃদ্ধির সোপান বেয়ে আজকের বাংলাদেশকে সোনার বাংলাদেশে পৌঁছে দেওয়ার প্রত্যয় জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।তিনি বলেছেন, ‘আমরা দেশের মানুষের শান্তি চাই, নিরাপত্তা চাই, উন্নত-সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়তে চাই।’

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে ‘মহাবিজয়ের মহানায়ক’ প্রতিপাদ্যে দুই দিনব্যাপী বিশেষ অনুষ্ঠানমালার আয়োজনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা সব দেশের সঙ্গে সুসসম্পর্ক বজায় রাখছি। যেটা জাতির পিতা আমাদের পররাষ্ট্রনীতি দিয়েছিলেন- ‘সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারো সঙ্গে বৈরিতা নয়।’ আমরা সেই পররাষ্ট্রনীতি নিয়েই সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব রেখে আমাদের দেশের উন্নয়নের চাকাকে আমরা সচল রেখেছি।’

বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে দাঁড়িয়ে দেশে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, নারী নির্যাতন ও মাদকের বিরুদ্ধে সরকারের ‘জিরো টলারেন্স’ নীতির কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।তিনি বলেন, ‘এ দেশের সব ধর্মের মানুষ যাতে সমানভাবে নিজ নিজ ধর্ম পালন করতে পারে, সরকার তা নিশ্চিত করেছে।’

তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য ছিল ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ হব। আজকে সেটা আমরা অর্জন করেছি। এখন আমাদের লক্ষ্য ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত, সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ হিসেবে আমরা গড়ে তুলব। সেই লক্ষ্য নিয়েই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

সেই এগিয়ে চলার পথে করোনা মহামারি প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করলেও সরকার ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণ করে অর্থনীতির চাকা সচল রেখেছে এবং গ্রামীণ অর্থনীতিকে উন্নত করার পদক্ষেপ নিয়েছে বলেও জানান বঙ্গবন্ধুকন্যা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।অনুষ্ঠানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলা ও ইংরেজিতে প্রকাশিত দুটি স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

এতে স্বাগত বক্তব্য দেন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী।

বাঙালির মহাবিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে আয়োজিত দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালায় সঙ্গী হয়েছেন মহান মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখা বন্ধুদেশ ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে ভারতের রাষ্ট্রপতি সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা শেষে সম্মাননীয় অতিথির হাতে ‘মুজিব চিরন্তন’ শ্রদ্ধা স্মারক তুলে দেন বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ কন্যা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন শেখ রেহানা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here