শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নির্যাতন বন্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টের পরামর্শ

0
38

খবর৭১ঃ সারাদেশের সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন বন্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি সাধারণ মানুষকে এ বিষয়ে সচেতন করাতে মিডিয়াকে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে বলেছেন ‍উচ্চ আদালত।

বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে আদালতের এক রুল যথাযথ ঘোষণা করে বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এমন পরামর্শ দেন।

২০১৮ সালে কুমিল্লার বিপুলসার হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থী নোমান হোসেনকে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষক এমদাদ হোসেন শারীরিক নির্যাতন করেন। সে ঘটনায় প্রকাশিত প্রতিবেদনটি আদালতের নজরে আনেন ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম। এরপর আদালত দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকের দ্বারা শিক্ষার্থীকে নির্যাতনের ঘটনায় কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত। সেই রুল যথাযথ ঘোষণা করে আজ আদালত তার পর্যবেক্ষণে এমন পরামর্শ দেন। কুমিল্লার এ ঘটনায় আদালতে পক্ষভুক্ত হয় বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট)।

আজ আদালতে ব্লাস্টের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার শারমিন আক্তার।

তিনি বলেন, ‘এ রুলের শুনানি শেষে আদালত কিছু মতামত দিয়েছেন। সেটি হচ্ছে সারা দেশের শিক্ষার্থীদের শারীরিক নির্যাতন বন্ধে কিছু পদক্ষেপ নিতে হবে সংশ্লিষ্টদের। আমাদেরে দেশে আইন থাকার পরেও দেখা যাচ্ছে শিক্ষার্থীদেরকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হচ্ছে। এগুলো বন্ধ করতে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্তণালয়, উপজেলা মনিটরিং কমিটি (যদি থাকে), আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী, এসব নির্যাতনের অভিযোগ যেন দ্রুত নিষ্পত্ত্বি হয়। নির্যাতনকারীদেরকে যেন কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হয়। শাস্তি নিশ্চিত করা হলে সেগুলো মিডিয়ায় প্রচারের জন্যও পরামর্শ দেন আদালত। এতে করে যেন সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি পায়।’

ঘটনার বিবরণ থেকে জানা যায়, ২০১৮ সালে কুমিল্লার বিপুলসার হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থী নোমান হোসেনকে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষক এমদাদ হোসেন শারীরিক নির্যাতন করেন। ঘটনাটি পত্রিকায় প্রচারিত হলে সেটি আদালতের নজরে আনা হয়। এরপর আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে পেটানো শিক্ষক এমদাদ হোসেনের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, তার বিরুদ্ধে কেন মামলা করা হবে না একইসঙ্গে ওই শিক্ষার্থীকে কেন চিকিৎসা দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হবে তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়। এ রুল যথাযথ ঘোষণা করে আজ আদালত এমন পরামর্শ দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here