নড়াইলে সংঘর্ষে তিনজন আহত

0
25

উজ্জ্বল রায়, জেলা প্রতিনিধি নড়াইল থেকে: নড়াইলের লোহাগড়া সরকারি কলেজে সংঘর্ষে আহত হয়েছেন তিনজন। বুধবার(২৫ আগষ্ট) দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা খুলনা ও লোহাগড়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। পুলিশ জানায়, লোহাগড়া সরকারি আদর্শ কলেজে একজন ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করাকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাসে মারপিটের শিকার হন চর মল্লিকপুর গ্রামের ফারমান ইসলামের ছেলে পিয়াস(২০)।

এরপর পিয়াস পরে লোকজন নিয়ে যেয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করে কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ঝিকড়া গ্রামের আব্দুস সাত্তার শেখের ছেলে ছাত্রলীগ কর্মী সজিব শেখ(২১)কে। কলেজের শিক্ষার্থীরা দ্রুত আহত পিয়াস ও সজিব শেখকে লোহাগড়া হাসাপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে।

পরে সজিব শেখকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।

কলেজের ঘটনার প্রায় এক ঘন্টা পর লোহাগড়া হাসপাতাল ক্যাম্পাসে হামলার শিকার হন নোয়াপাড়া গ্রামের সোহরাব গাজীর ছেলে কলেজ ছাত্র বিপ্লব গাজী (১৯)।

মারাত্বক জখম সজিব শেখ লোহাগড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গ্রুপের কর্মী। উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সজীব মুসল্লী বলেন, কলেজে এসারর্মেন্ট খাতা জমা দিতে যায় ছাত্রলীগ কর্মী সজিব শেখ ও তার বন্ধু সোহাগ।

এসময় বহিরাগত পিয়াস তার সঙ্গীদের নিয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে অবস্থান করছিলেন। তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে বিএনপি- জামায়াত সমর্থিত পিয়াস, পলাশ, মারুফ গাজী, আব্দুল্লা, রহিম, দিদার, তপু সহ ৪০-৫০ জনের একটি দল কুপিয়ে ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে ছাত্রলীগ কর্মী সজিব শেখ কে জখম করে। এদিকে, প্রতিপক্ষ তপু ও সুরবান অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

লোহাগড়া সরকারি আদর্শ কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ আকবর হোসেন জানান, কলেজের গেটের সামনে ছাত্রলীগের ছেলেদের মধ্যে বিরোধ হয়েছে শুনেছি। কলেজ ক্যাম্পাসে কোন ঘটনা ঘটেনি।

লোহাগড়া থানার ওসি(তদন্ত) হরিদাস রায় বলেন, মারপিটের ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে তপু, ছুরবান, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সজিব মুসলিস্ন, মোহাম্মদ ও মামুন কে আটক করা হয়েছিল।

কিন্তু পরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির জিম্মায় আটককৃতদের ছেড়ে দিয়েছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here