দুই মামলায় ৩ দিনের রিমান্ডে অমি

0
66

খবর৭১ঃ ঢাকা বোট ক্লাবে বাংলা সিনেমার অভিনেত্রী পরীমনির করা ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যাচেষ্টা মামলার পর গ্রেপ্তার তুহিন সিদ্দিকি অমিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রাজধানীর দক্ষিণখান থানায় মানবপাচার ও পাসপোর্ট আইনে করা পৃথক দুই মামলায় তার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

বুধবার মানবপাচার আইনে মামলায় ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মইনুল ইসলাম দুই দিন ও পাসপোর্ট আইনে মামলায় ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান মো. নোমান একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার সাধরণ নিবন্ধন শাখা থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, দক্ষিণখান থানায় মানবপাচার ও পাসপোর্ট আইনের পৃথক দুই মামলায় ১০ দিন করে মোট ২০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। আসামিপক্ষের আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিলের আবেদন করেন। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষ রিমান্ডের দাবি জানান। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে বিচারক দুই মামলায় তিন দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

৯ জুন মধ্যরাতে সাভারে অবস্থিত ঢাকা বোট ক্লাবে চিত্রনায়িকা পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা করা হয় বলে অভিযোগ করেন পরীমনি।

ঘটনার চার দিন পর ১৩ জুন রাত ৮টার দিকে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে এবং রাত ১১টার দিকে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘটনা প্রকাশ করেন নায়িকা পরীমনি।

গত ১৪ জুন সাভার থানায় নির্যাতন ও ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও অমিসহ অজ্ঞাত চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন পরীমনি। ওইদিন দুপুরে পরীমনি নিজে বাদী হয়ে মামলাটি করেন। পরে নাসির উদ্দিন আহমেদ ও অমিসহ পাঁচজনকে উত্তরা থেকে আটক করে পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)।

গ্রেপ্তারের পর ১৭ জুন রাজধানীর দক্ষিণখান থানায় অমির বিরুদ্ধে মানবপাচার আইনে মামলা করেন এক ভুক্তভোগী। মামলায় অমি ছাড়া আরও পাঁচজনের নাম উল্লেখ করা হয়। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে আরও পাঁচ-সাত জনকে।

পরে ঢাকা ও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে অভিযান চালিয়ে অমির আট সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে ৩৯৫টি পাসপোর্ট, অমির চারটি বিলাসবহুল গাড়ি, ২২টি হার্ড ডিস্ক, সম্পত্তির দলিল, ক্রেডিট কার্ড, অলিখিত স্ট্যাম্প, বিভিন্ন ব্যাংকের চেক বই, ভিসা কার্ড, পেনড্রাইভ ও মোবাইল সেট জব্দ করা হয়।

অন্যদিকে দক্ষিণখান থানাধীন আশকোনা হাজি ক্যাম্প সংলগ্ন সিঙ্গাপুর ট্রেনিং সেন্টার নামে একটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে তুহিন সিদ্দিকী অমির। গত ১৫ জুন (মঙ্গলবার) রাতে ঢাকা জেলা পুলিশ এসে দক্ষিণখান এলাকায় অভিযান চালিয়ে অমির দুই সহযোগী বাছির ও মশিউরকে আটক করে। আটকের পর ঢাকা জেলা পুলিশ বাদী হয়ে দক্ষিণখান থানায় পাসপোর্ট অ্যাক্টে একটি মামলা করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১০২টি পাসপোর্ট জব্দ করা হয়েছে।

মানবপাচার ও বেআইনিভাবে পাসপোর্ট রাখার অভিযোগে দক্ষিণখান থানায় করা দুই মামলায় ২৩ জুন তুহিন সিদ্দিকী অমিকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন মঞ্জুর করেন আদালত। একইসঙ্গে সেদিন দুই মামলারই তদন্ত কর্মকর্তার করা রিমান্ড আবেদনের শুনানির জন্য ৩০ জুন দিন ধার্য করেছিলেন বিচারক। আজ সেই দুই মামলায় অমির তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here