বাগেরহাটে শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা: যুবকের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

0
62

বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটে সদরের পাতিলাখালী গ্রামের প্রথম শ্রেণিতে পড়ুয়া মাদ্রাাসা ছাত্রী লামিয়া আক্তার ফারিয়াকে (৭) ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা অভিযোগে মিনহাজুল আবেদীন শোয়েব নামে এক যুবককে যাবতজ্জীবন কারা দন্ডের আদেশ দিয়েছে বাগেরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল- ১ এর বিচারক জেলা জজ মো. সাইফুল ইসলাম। বৃহস্পতিবার বিকালে চা ল্যকর এই মামলার রায় ঘোষনা কালে ঘাতক মিনহাজুল আবেদীন শোয়েব আদালতে উপস্থিত ছিলেন। মিনহাজুল আবেদীন শোয়েব পাশ্ববর্তী পিরোজপুর জেলার নামাজপুর গ্রামের নুরুল ইসলাম ইমনের ছেলে।
বাগেরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল- ১ এর আদালতের সরকারী কৌশলী (পিপি) এ্যাডভোকেট সিদ্দিকুর রহমান খান জানান, বিগত ২০১৯ সালের ৫ মে বাগেরহাট সদর উপজেলার গোটাপাড়া ইউনিয়নের পাতিলাখালী ওমর আলী শেখের মেয়ে ও স্থানীয় কোন্ডলা বড়ু বিবি দাখিল মাদ্রাসার প্রথম শ্রেনীর ছাত্রী লামিয়া আক্তার ফারিয়াকে (৭) শিশুটিকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে স্থানীয় দিঘিরজান খালের চরে লাশ পুঁতে রাখে হত্যাকারী যুবক মিনহাজুল আবেদীন শোয়েব। ওইদিন রাত ৮টার দিকে স্থানীয়রা শিশু লামিয়ার মৃতদেহ উদ্ধার করে। পুলিশ শিশুটির লাশ উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। এ হত্যায় জড়িত সন্দেহে স্থানীরা নানা বাড়ীতে থাকা বখাটে যুবক মিনহাজুল আবেদীন শোয়েবকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। আটক যুবক মিনহাজুল আবেদীন শোয়েব পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে শিশু লামিয়া আক্তার ফারিয়াকে ধর্ষণ- শ্বাসরোধে হত্যার পর খালের চরে লাশ পুতে রাখার কথা স্বীকার করে। এঘটনায় ওইদিন রাতে শিশুটির পিতা ওমর আলী শেখ বাদী হয়ে বাগেরহাট মডেল থানায় মিনহাজুল আবেদীন শোয়েবকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। ডাক্তারদের দেয়া ময়না তদন্তের রিপোর্টের ধর্ষনের পর শ্বাসরোধে হত্যার বিষয়টি উল্লেখ থাকার পর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বাগেরহাট মডেল থানায় এসআই হীরন্ময় ওই বছরের ১৩ জুলাই ঘাতক মিনহাজুল ইসলাম শোয়েব ও তার সহযোগী কোন্ডলা গ্রামের মো. সাহেব শেখর ছেলে মিঠু শেখকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্চশীট দাখিল করে। আদালত ১৬ জনের স্বক্ষ্য প্রহন শেষে বৃহস্পতিবার বিকালে বিচারক এই রায় প্রদান করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here