জুলিয়েট-আলেকজান্ডারের গভীর প্রেম মেনে নেয়নি পিলপিল

0
58

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট
নিবিড় পরিচর্যার পর অবশেষে সুস্থ হয়েছে বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রে লালিত জুলিয়েট। গত ২৩ জানুয়ারি সুন্দরবনের প্রজনন কেন্দ্রে করমজলের কুমির জুলিয়েট একটি প্রাণীকে শিকার করে খাবারের চেষ্টা করলে পিছন থেকে আক্রমণ করে পিলপিল। এতে শরীরে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে জুলিয়েট। সুন্দরবনের করমজলের একমাত্র বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রের একটি পুকুরে কুমির জুলিয়েট, পিলপিল ও রোমিও বসবাস করতো। এর মধ্যে পুরুষ কুমির রোমিও বয়স বেশী ও শারীরিকভাবে অক্ষম হয়ে পড়ায় তাকে অন্য একটি পুকুরে আলাদা করে রাখা হয়। বংশবৃদ্ধি ও প্রজননের জন্য ২০১৮ সালে গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারী পার্ক থেকে পুরুষ কুমির আলেকজান্ডারকে আনা হয় স্ত্রী কুমির পিলপিল ও জুলিয়েটের জন্য। সেই থেকে ওই ৩টি কুমির পুকুরে বসবাস করছে একত্রে।

বন বিভাগের পর্যটক স্পট করমজলের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজাদ কবির বলেন, স্ত্রী কুমির পিলপিল ও জুলিয়েটের মধ্যে আলেকজান্ডারকে নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে বিরোধ চলে আসছিল। এরই মধ্যে জুলিয়েটের সঙ্গে পুরুষ কুমির আলেকজান্ডারের সম্পর্কটা গভীর হওয়ায় প্রায়সময়ই জুলিয়েটকে শত্রুতার চোখে দেখতো পিলপিল। পুকুরের মধ্যে এ দুজনের মধ্যে প্রায় সময়ই মারামারি লেগে থাকতো। ২৩ জানুয়ারি সকালের দিকে জুলিয়েট একটি বানরকে শিকার হিসেবে কাছে পেয়ে পাড় থেকে টেনে পুকুরের মাঝে নিয়ে যায়। এসময় অন্য স্ত্রী কুমির পিলপিল পিছন থেকে জুলিয়েটের উপর আক্রমণ করে। এতে জুলিয়েটের শরীরে প্রায় ১১ ইি লম্বা এবং দেড় ইি গভীর ক্ষতসহ বিভিন্ন স্থানে আঘাত প্রাপ্ত হয়। তাৎক্ষণিক বন বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অনুমতিতে পুকুর থেকে জুলিয়েটকে ক্ষত-বিক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে একটি শুকনো প্যানে রেখে চিকিৎসা শুরু করেন প্রাণী বিশেষজ্ঞ আজাদ কবির।

তিনি আরও বলেন, দীর্ঘ ২৬ দিন নিবিড় পরিচর্যা ও চিকিৎসার পর স্ত্রী কুমির জুলিয়েটকে সুস্থ করে তোলা হয়েছে। ১৯ ফ্রেব্রুয়ারি (শুক্রবার) বন বিভাগের কর্তৃপক্ষের অনুমতিক্রমে জুলিয়েটকে পুনরায় ওই পুকুরে অবমুক্ত করি। কিন্তু আমরা চিন্তিত ছিলাম, ভয় হচ্ছিল পুর্বের ঘটনা পুনরাবৃত্তি ঘটিয়ে পিলপিল জুলিয়েটকে মেরে ফেলতে পারে। এদিকে জুলিয়েট দীর্ঘ ২৬ দিন পুকুরে না থাকায় পিলপিলের সঙ্গে আলেকজান্ডারের সম্পর্ক গভীর হয়েছে। তাই পিলপিল আলেকজান্ডারের সাথে জুলিয়েটের সম্পর্ক আর মেনে নাও নিতে পারে। ঠিক তাই ঘটলো। জুলিয়েটকে ছাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পিলপিল আবারো জুলিয়েটের উপর ঝাঁপিয়ে পরে আক্রমণ করে।

আজাদ কবির জানান, কিন্তু মুহূর্তের মধ্যে ঘটলো নতুন ঘটনা। দুজনের মারামারির মধ্যে আলেকজান্ডার মাঝখানে ভেসে উঠল এবং মাথা নাড়ার সাথে সাথে জুলিয়েট এবং পিলপিল আলাদা হয়ে দুদিকে চলে গেল।আলেকজান্ডার প্রথমে জুলিয়েটের কাছে কিছু সময় কাটিয়ে, পরে পিলপিলের কাছে গিয়ে সময় দিয়েছে বলে জানান কর্মকর্তা আজাদ কবির। তিনি বলেন, মনে হচ্ছে দুজনের আদর সোহাগে তার সংসার ভালই চলছে। বর্তমানে দুজন এক জায়গায় না থাকলেও তাদের মধ্যে কোনো গোলমাল নেই, অবমুক্ত করার পর এখন পর্যন্ত তারা সবাই ভালো আছে বলে জানান প্রজনন কেন্দ্রের কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য,২০০২ সালে পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের করমজলে বন বিভাগের উদ্যোগে ৮ একর জমির ওপর সরকারিভাবে গড়ে তোলা হয় দেশের একমাত্র বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রটি। নোনা পানির কুমির সাধারণত ৬০-৬৫ বছর পর্যন্ত ডিম দিতে পারে। আর বেঁচে থাকে ৮০-১০০ বছর পর্যন্ত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here