শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনঃ ৩ বিদ্রোহী নিয়ে আ’লীগের কপালে চিন্তার ভাঁজ

0
57
শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনঃ ৩ বিদ্রোহী নিয়ে আ’লীগের কপালে চিন্তার ভাঁজ

খবর৭১ঃ

মঈনুল হাসান রতন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের তিন বিদ্রোহী প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করায় দলীয় মূল প্রার্থী মাসুদউজ্জামান মাসুকের কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে। অন্যদিকে, একক প্রার্থী হওয়ায় দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে অনেকটাই নির্ভার হয়ে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন বিএনপি প্রার্থী ফরিদ আহমেদ অলি। জানা যায়, গত ৫ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের বিদ্রোহীদের নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আলোচনায় বসেন জেলা নেতারা।

এ সময় নির্বাচন থেকে সড়ে দাঁড়ানোর জন্য বলা হলেও কোনো প্রার্থীই তা মানেননি। জেলা আওয়ামী লীগের নির্দেশনা উপেক্ষা করে নির্বাচনের মাঠে রয়েছেন ছালেক মিয়া, ফজল উদ্দিন তালুকদার ও আবুল কাশেম শিবলু। এদিকে, বৃহস্পতিবার প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিনে শুধু স্বতন্ত্র প্রার্থী সারোয়ার আলম শাকিল মেয়র পদ থেকে নিজের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন। এ ছাড়া গত ৩ ডিসেম্বর প্রার্থিতা বাছাইয়ের দিন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আতাউর রহমান মাসুকের মনোনয়নপত্রে ভুল থাকায় তা বাতিল হয়। ৬ ডিসেম্বর জেলা প্রশাসকের কাছে আপিল করেও ফিরে পাননি বৈধতা। আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের দাপটে অন্যান্য পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থীরা কাবু হলেও শায়েস্তাগঞ্জের সমীকরণ ভিন্ন। আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও দলটির বিদ্রোহী তিন প্রার্থীর ভিড়ে বিএনপির প্রার্থী একক। শুধু তাই নয়, এখানে বিএনপি প্রার্থী ফরিদ আহমেদ অলির রয়েছে তুমুল জনপ্রিয়তা। শুধু বিএনপি নয়, আওয়ামী লীগ পরিবার থেকেও ভোট আনার ক্ষমতা রাখেন তিনি। অন্যদিকে, বিদ্রোহীর চাপে চিড়াচ্যাপ্টা আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী মাসুদউজ্জামান মাসুকের চোখে সরষে ফুল। তবে জনপ্রিয়তার দিক থেকে খুব একটা পিছিয়ে নেই তিনিও।

শায়েস্তাগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও তিনবারের কাউন্সিলর হওয়ায় বেশ জনপ্রিয়তা রয়েছে তার। পৌরবাসী বলছেন, দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় জনপ্রিয়তার চেয়ে এখানে মার্কাই বেশি প্রাধান্য পাবে। সে ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের দলীয় ভোট চার প্রার্থী ভাগ-বাটোয়ারা করে নিলেও বিএনপি প্রার্থী ফরিদ আহমেদ অলি পাবেন একচাটিয়া। তবে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইমদাদুল ইসলাম শীতলকে নিয়ে নেই তেমন আলোচনা। আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী মাসুদউজ্জামান মাসুকের সঙ্গে মূলত ‘গৃহযুদ্ধ’ হবে বর্তমান মেয়র ছালেক মিয়ার। ভোটের ময়দানে একে অপরকে এক ইঞ্চি ছাড় দেওয়ার চিন্তাও নেই। তবে বাকি দুই প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ফজল উদ্দিন তালুকদার ও আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কাশেম শিবলু তেমন প্রভাব না ফেললেও ক্ষতির পরিসংখ্যান বাড়িয়ে দেবেনে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থীর। আওয়ামী লীগের প্রার্থীজটের সম্ভাবনা আগেই জানা ছিল বিএনপি নেতাকর্মীদের। যে কারণে জয়ের লক্ষ্যে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী শক্তিশালী একক প্রার্থী ঠিক করে রেখেছে দলটি।

সব মিলিয়ে আওয়ামী লীগের দুর্গে বেশ শক্তিশালী আঘাতই করবে বিএনপি। পূর্বের পৌর সিংহাসনে আবারও স্বমহিমায় বসার আশায় বেশ কৌশলী রয়েছেন ফরিদ আহমেদ অলি।আগামী ২৮ ডিসেম্বর শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত প্রথম শ্রেণির এ পৌরসভার আয়তন ১০ দশমিক ৪০ বর্গকিলোমিটার। মোট ভোটার সংখ্যা ১৭ হাজার ৯৬১।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here